ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ: ৩ ছাত্রলীগ নেতা ৫ দিনের রিমান্ডে
jugantor
ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ: ৩ ছাত্রলীগ নেতা ৫ দিনের রিমান্ডে

  সিলেট ব্যুরো  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:০৪:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ: ৩ ছাত্রলীগ নেতা ৫ দিনের রিমান্ডে

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় আসামি মাহবুবুর রহমান রনিসহ তিন ছাত্রলীগ নেতার পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় সিলেট মহানগর হাকিম-২ আদালতের বিচারক তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে কড়া নিরাপত্তায় এজাহার নামীয় আসামি ছাত্রলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান রনি, রাজন মিয়া ও আইনুদ্দিনকে আদালতে হাজির করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও শাহপরান থানার এসআই ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য আসামিদের সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তিন আসামির পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ সময় আসামিদের পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

যুগান্তরকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন শুনানিতে উপস্থিত আইনজীবী দেবব্রত চৌধুরী লিটন।

প্রসঙ্গত গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই নববধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে বেঁধে রাখা হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

এ পর্যন্ত মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামি গ্রেফতার হয়েছেন। বাকি আছেন শুধু তারেকুল ইসলাম তারেক। সন্দেহভাজন দুজনসহ মামলায় মোট সাতজন গ্রেফতার হয়েছেন।

ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ: ৩ ছাত্রলীগ নেতা ৫ দিনের রিমান্ডে

 সিলেট ব্যুরো 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছাত্রাবাসে নববধূ গণধর্ষণ: ৩ ছাত্রলীগ নেতা ৫ দিনের রিমান্ডে
ফাইল ছবি

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় আসামি মাহবুবুর রহমান রনিসহ তিন ছাত্রলীগ নেতার পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় সিলেট মহানগর হাকিম-২ আদালতের বিচারক তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে কড়া নিরাপত্তায় এজাহার নামীয় আসামি ছাত্রলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান রনি, রাজন মিয়া ও আইনুদ্দিনকে আদালতে হাজির করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও শাহপরান থানার এসআই ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য আসামিদের সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তিন আসামির পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ সময় আসামিদের পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

যুগান্তরকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন শুনানিতে উপস্থিত আইনজীবী দেবব্রত চৌধুরী লিটন।

প্রসঙ্গত গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই নববধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে বেঁধে রাখা হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

এ পর্যন্ত মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামি গ্রেফতার হয়েছেন। বাকি আছেন শুধু তারেকুল ইসলাম তারেক। সন্দেহভাজন দুজনসহ মামলায় মোট সাতজন গ্রেফতার হয়েছেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন