করোনায় আক্রান্ত হয়েও অফিস করছেন মদনের ইপিআই টেকনিশিয়ান
jugantor
করোনায় আক্রান্ত হয়েও অফিস করছেন মদনের ইপিআই টেকনিশিয়ান

  মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৪২:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনাভাইরাসের পজিটিভ রিপোর্ট পেয়েও অন্যান্য দিনের মতো মঙ্গলবার অফিস করেছেন। এতে সেবা নিতে আসা রোগী ও হাসপাতাল স্টাফদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে আতঙ্ক। তবে তার অফিস করার বিষয়টি জানে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, গত ২০ সেপ্টেম্বর মদন হাসপাতালের ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। ২২ সেপ্টেম্বর তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। কিন্তু তিনি এর গুরুত্ব না দিয়ে নিয়মিত অফিস করে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে মদন হাসপাতালে সরেজমিন শামছুদ্দিনের অফিস কক্ষে গেলে দেখা যায় দাফতরিক কাজে ব্যস্ত তিনি। কোনোরকম স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই ৫-৬ জন অফিস স্টাফ নিয়ে আলোচনা করছেন।

এ ব্যাপারে টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ২০ সেপ্টেম্বর করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিলে ২২ সেপ্টেম্বর রিপোর্টে করোনা পজিটিভ আসে। আজ দ্বিতীয়বার নমুনা দেয়ার জন্য অফিসে এসেছি।

স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অফিস করছেন- বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর না দিয়ে এড়িয়ে যান। এ সময় সাংবাদিকদের দেখতে পেয়ে অন্যান্য স্টাফ তার কক্ষ থেকে বের হয়ে যান।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সাইফুল্লাহ সজীব বলেন, ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনায় আক্রান্ত। তবে তার অফিস করার বিষয়ে আমি অবগত ছিলাম না। এখনই জানতে পারলাম সে অফিসে আছে। আজকেই শোকজ করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

এ পর্যন্ত মদন হাসপাতালে কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ১৪ জন করোনায় পজিটিভ হয়েছিলেন। সবাই সুস্থ আছেন।

করোনায় আক্রান্ত হয়েও অফিস করছেন মদনের ইপিআই টেকনিশিয়ান

 মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনাভাইরাসের পজিটিভ রিপোর্ট পেয়েও অন্যান্য দিনের মতো মঙ্গলবার অফিস করেছেন। এতে সেবা নিতে আসা রোগী ও হাসপাতাল স্টাফদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে আতঙ্ক। তবে তার অফিস করার বিষয়টি জানে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, গত ২০ সেপ্টেম্বর মদন হাসপাতালের ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। ২২ সেপ্টেম্বর তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। কিন্তু তিনি এর গুরুত্ব না দিয়ে নিয়মিত অফিস করে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে মদন হাসপাতালে সরেজমিন শামছুদ্দিনের অফিস কক্ষে গেলে দেখা যায় দাফতরিক কাজে ব্যস্ত তিনি। কোনোরকম স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই ৫-৬ জন অফিস স্টাফ নিয়ে আলোচনা করছেন।

এ ব্যাপারে টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ২০ সেপ্টেম্বর করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিলে ২২ সেপ্টেম্বর রিপোর্টে করোনা পজিটিভ আসে। আজ  দ্বিতীয়বার নমুনা দেয়ার জন্য অফিসে এসেছি।

স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অফিস করছেন- বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর না দিয়ে এড়িয়ে যান। এ সময় সাংবাদিকদের দেখতে পেয়ে অন্যান্য স্টাফ তার কক্ষ থেকে বের হয়ে যান।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সাইফুল্লাহ সজীব বলেন, ইপিআই টেকনিশিয়ান শামছুদ্দিন করোনায় আক্রান্ত। তবে তার অফিস করার বিষয়ে আমি অবগত ছিলাম না। এখনই জানতে পারলাম সে অফিসে আছে। আজকেই শোকজ করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

এ পর্যন্ত মদন হাসপাতালে কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ১৪ জন করোনায় পজিটিভ হয়েছিলেন। সবাই সুস্থ আছেন।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন