এমসি কলেজে গণধর্ষণ: প্রতিদিন ১২ ঘণ্টার লকডাউনে শাবি
jugantor
এমসি কলেজে গণধর্ষণ: প্রতিদিন ১২ ঘণ্টার লকডাউনে শাবি

  শাবি প্রতিনিধি  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১৭:৪০:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট এমসি কলেজে ঘটে যাওয়া গৃহবধূ গণধর্ষণসহ সাম্প্রতিক নিরাপত্তা ইস্যুতে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টার লকডাউন ঘোষণা করেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কোনো বহিরাগত অবস্থান করতে পারবেন না।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, এমসি কলেজ দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। সিলেটের সাধারণ মানুষেরা সাধারণত পরিবার-পরিজন নিয়ে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ও এমসি কলেজে ঘুরতে যান। এমসি কলেজ হোস্টেলে সংঘটিত এ ন্যক্কারজনক ঘটনায় আমরা যারপরনাই ক্ষুব্ধ ও স্তম্ভিত। যেহেতু এ সময়টাতে ক্যাম্পাস বন্ধ, তাই সাময়িকভাবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা সন্ধ্যার পর থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত দর্শনার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি।

বৃহস্পতিবার রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ লকডাউনের বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বিকাল ৫টার পর থেকে বিভাগের ল্যাবগুলোও বন্ধ রাখার জন্য বিভাগীয়প্রধানদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তবে ক্যাম্পাসে আবাসিক বাসিন্দাদের জন্য বিষয়টি শিথিলযোগ্য থাকবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে বলে উল্লেখ করা হয় এ বিজ্ঞপ্তিতে।

সার্বিক বিষয়ে শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জানান, বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সবার সুবিধার্থে এ সিদ্ধান্ত। যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ও স্বাভাবিক থাকে ও স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য নিরাপত্তাও বিধান থাকে।

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: প্রতিদিন ১২ ঘণ্টার লকডাউনে শাবি

 শাবি প্রতিনিধি 
০১ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট এমসি কলেজে ঘটে যাওয়া গৃহবধূ গণধর্ষণসহ সাম্প্রতিক নিরাপত্তা ইস্যুতে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টার লকডাউন ঘোষণা করেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কোনো বহিরাগত অবস্থান করতে পারবেন না।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, এমসি কলেজ দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। সিলেটের সাধারণ মানুষেরা সাধারণত পরিবার-পরিজন নিয়ে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ও এমসি কলেজে ঘুরতে যান। এমসি কলেজ হোস্টেলে সংঘটিত এ ন্যক্কারজনক ঘটনায় আমরা যারপরনাই ক্ষুব্ধ ও স্তম্ভিত। যেহেতু এ সময়টাতে ক্যাম্পাস বন্ধ, তাই সাময়িকভাবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা সন্ধ্যার পর থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত দর্শনার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি।

বৃহস্পতিবার রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ লকডাউনের বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বিকাল ৫টার পর থেকে বিভাগের ল্যাবগুলোও বন্ধ রাখার জন্য বিভাগীয়প্রধানদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তবে ক্যাম্পাসে আবাসিক বাসিন্দাদের জন্য বিষয়টি শিথিলযোগ্য থাকবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে বলে উল্লেখ করা হয় এ বিজ্ঞপ্তিতে।

সার্বিক বিষয়ে শাবি ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জানান, বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সবার সুবিধার্থে এ সিদ্ধান্ত। যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ও স্বাভাবিক থাকে ও স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য নিরাপত্তাও বিধান থাকে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন