ভোলায় ১০৪ বছর বয়সী বোনের জানাজায় তোফায়েল আহমেদ
jugantor
ভোলায় ১০৪ বছর বয়সী বোনের জানাজায় তোফায়েল আহমেদ

  যুগান্তর রিপোর্ট ও ভোলা প্রতিনিধি  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১৭:৪৮:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোলায় বড় বোন নূরচেহারা খাতুনের জানাজায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশ নিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ভোলা-১ আসনের এমপি সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বৃহস্পতিবার সকালে ক্রোড়ালিয়া গ্রামের বাড়ির মসজিদ চত্বরে দুই দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

নূরচেহারা খাতুন ১০৪ বছর বয়সে মারা গেছেন। তিনি গত এক বছর বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। ৬ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান।

জানাজায় অংশ নেন ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল, ভোলা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, দৌলতখান উপজেলা চেয়ারম্যান মনজুর আলম খান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, ভোলা পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, বোরহানউদ্দিন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দোস্ত মাহমুদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ বাবুল, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা পরিষদ সদস্য খায়রুল হাসান খোকনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

মরহুমার জন্য দোয়া চেয়ে বক্তব্য রাখেন মেজো ছেলে বাস মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সফিকুল ইসলাম। জানাজায় অংশগ্রহণকালে তোফায়েল আহমেদ তার বোনের জন্য সবার কাছে অনুরোধ জানান। পরে তিনি পারিবারিক কবরস্থান পরিদর্শন ও মা-বাবার কবর জিয়ারত করেন। এছাড়া তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে স্মৃতিচারণ করেন।

নূরচেহারা বেগমের মৃত্যুতে শোক জানান ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক আবদুল মমিন টুলু, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার দোস্ত মাহমুদ, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মো. সফিকুল ইসলাম, প্রেস ক্লাব সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, প্রেস ক্লাব সম্পাদক অমিতাভ অপু, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে, ওই সংগঠনের সম্পাদক অসীম সাহা, বাস মালিক সমিতির সভাপতি আক্তার হোসেন, নাগরিক কমিটির সভাপতি মো. আবু তাহের, ওই সংগঠনের সহসভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর দুলাল চন্দ্র ঘোষ।

নূরচেহারা খাতুন বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সদর উপজেলার বাংলাবাজার উপশহরে তার ছোট ছেলে নজরুল ইসলামের বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন।

ভোলায় ১০৪ বছর বয়সী বোনের জানাজায় তোফায়েল আহমেদ

 যুগান্তর রিপোর্ট ও ভোলা প্রতিনিধি 
০১ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোলায় বড় বোন নূরচেহারা খাতুনের জানাজায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশ নিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ভোলা-১ আসনের এমপি সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বৃহস্পতিবার সকালে ক্রোড়ালিয়া গ্রামের বাড়ির মসজিদ চত্বরে দুই দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

নূরচেহারা খাতুন ১০৪ বছর বয়সে মারা গেছেন। তিনি গত এক বছর বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। ৬ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান।

জানাজায় অংশ নেন ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম  মুকুল, ভোলা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, দৌলতখান উপজেলা চেয়ারম্যান মনজুর আলম খান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, ভোলা পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, বোরহানউদ্দিন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দোস্ত মাহমুদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ বাবুল, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা পরিষদ সদস্য খায়রুল হাসান খোকনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

মরহুমার জন্য দোয়া চেয়ে বক্তব্য রাখেন মেজো ছেলে বাস মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সফিকুল ইসলাম। জানাজায় অংশগ্রহণকালে তোফায়েল আহমেদ তার বোনের জন্য সবার কাছে অনুরোধ জানান। পরে তিনি পারিবারিক কবরস্থান পরিদর্শন ও মা-বাবার কবর জিয়ারত করেন। এছাড়া তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে স্মৃতিচারণ করেন।

নূরচেহারা বেগমের মৃত্যুতে শোক জানান ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক আবদুল মমিন টুলু, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার দোস্ত মাহমুদ, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মো. সফিকুল ইসলাম, প্রেস ক্লাব সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, প্রেস ক্লাব সম্পাদক অমিতাভ অপু, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে, ওই সংগঠনের সম্পাদক অসীম সাহা, বাস মালিক সমিতির সভাপতি আক্তার হোসেন, নাগরিক কমিটির সভাপতি মো. আবু তাহের, ওই সংগঠনের সহসভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর দুলাল চন্দ্র ঘোষ।

নূরচেহারা খাতুন বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সদর উপজেলার বাংলাবাজার উপশহরে তার ছোট ছেলে নজরুল ইসলামের বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন