রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০
jugantor
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

  উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

০১ অক্টোবর ২০২০, ২২:৪৩:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার রাতে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে আরসা গ্রুপ ও মুন্না গ্রুপের মধ্যে গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে।

কুতুপালং রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পের চেয়ারম্যান হাফেজ জালাল আহমদ জানান, ক্যাম্প নিয়ন্ত্রণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আরসা গ্রুপের নেতা মৌলভী আবু আনাস ও মো. রফিকের নেতৃত্বে মুন্না গ্রুপের মধ্যে বুধবার সন্ধ্যা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত দফায় দফায় গুলিবর্ষণ ও হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় সন্ত্রাসীদের হামলায় কুতুপালং ই-ব্লকের ১০-১৫টি ঝুপড়ি ঘর ভাংচুর করা হয়।

কুতুপালং ২ নম্বর ক্যাম্পের হেড মাঝি সিরাজুল মোস্তফা বলেন, দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় ছুরি ও লাঠির আঘাতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় দুইজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ও কুতুপালং এনজিওদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কুতুপালং ক্যাম্প ইনচার্জ খলিলুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পৌঁছলে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া থানার নবাগত ওসি আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মধ্যে বুধবার রাতে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলেও বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাটির ব্যাপারে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

 উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার রাতে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে আরসা গ্রুপ ও মুন্না গ্রুপের মধ্যে গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে।

কুতুপালং রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পের চেয়ারম্যান হাফেজ জালাল আহমদ জানান, ক্যাম্প নিয়ন্ত্রণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আরসা গ্রুপের নেতা মৌলভী আবু আনাস ও মো. রফিকের নেতৃত্বে মুন্না গ্রুপের মধ্যে বুধবার সন্ধ্যা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত দফায় দফায় গুলিবর্ষণ ও হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় সন্ত্রাসীদের হামলায় কুতুপালং ই-ব্লকের ১০-১৫টি ঝুপড়ি ঘর ভাংচুর করা হয়।

কুতুপালং ২ নম্বর ক্যাম্পের হেড মাঝি সিরাজুল মোস্তফা বলেন, দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় ছুরি ও লাঠির আঘাতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় দুইজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ও কুতুপালং এনজিওদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কুতুপালং ক্যাম্প ইনচার্জ খলিলুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পৌঁছলে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া থানার নবাগত ওসি আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মধ্যে বুধবার রাতে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলেও বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাটির ব্যাপারে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন