যশোরে ঘুষ নেয়ায় ইউপি মেম্বার বরখাস্ত
jugantor
যশোরে ঘুষ নেয়ায় ইউপি মেম্বার বরখাস্ত

  যশোর ব্যুরো  

০৭ অক্টোবর ২০২০, ১৭:৫৪:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের চৌগাছা উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আকতারুজ্জামান মিলনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা এবং মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠিটি মঙ্গলবার গণমাধ্যমের কাছে এসেছে।

ওই চিঠিতে বলা হয়েছে- আখতারুজ্জামান মিলন হাকিমপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য হিসেবে এলাকার বিভিন্ন লোকের নিকট হতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্দী ভাতা এবং মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অর্থ আদায়ের অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক, যশোরের সুপারিশ মোতাবেক তাকে সাময়িক বরখাস্ত এবং (স্থানীয় সরকার) আইন-২০০৯ এর ৩৪ (৪) (খ) ও (ঘ) ধারার অপরাধে স্বীয় পদ হতে কেন চূড়ান্তভাবে অপসারণ করা হবে না- সেই মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হল।

এর আগে ওই ওয়ার্ডের ভুক্তভোগীরা দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) মেম্বার আক্তারুজ্জামান মিলনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, যা দুদকের নির্দেশে চৌগাছার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র পাল তদন্ত করে সত্যতা পান।

পরে ওই ভুক্তভোগীরা আরও দুইবার চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। বিষয়টি বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত ও টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচার হয়।

চৌগাছা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা প্রকৌশলী এনামুল হক জানান, হাকিমপুর ইউপির সদস্য আক্তারুজ্জামান (মিলন) মেম্বারকে সাময়িক বরখাস্ত ও কারণ দর্শানো নোটিশ পাওয়া গেছে।

যশোরে ঘুষ নেয়ায় ইউপি মেম্বার বরখাস্ত

 যশোর ব্যুরো 
০৭ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের চৌগাছা উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আকতারুজ্জামান মিলনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা এবং মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। 

গত ২৪ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠিটি মঙ্গলবার গণমাধ্যমের কাছে এসেছে।

ওই চিঠিতে বলা হয়েছে- আখতারুজ্জামান মিলন হাকিমপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য হিসেবে এলাকার বিভিন্ন লোকের নিকট হতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্দী ভাতা এবং মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অর্থ আদায়ের অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। 

জেলা প্রশাসক, যশোরের সুপারিশ মোতাবেক তাকে সাময়িক বরখাস্ত এবং (স্থানীয় সরকার) আইন-২০০৯ এর ৩৪ (৪) (খ) ও (ঘ) ধারার অপরাধে স্বীয় পদ হতে কেন চূড়ান্তভাবে অপসারণ করা হবে না- সেই মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হল। 

এর আগে ওই ওয়ার্ডের ভুক্তভোগীরা দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) মেম্বার আক্তারুজ্জামান মিলনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, যা দুদকের নির্দেশে চৌগাছার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র পাল তদন্ত করে সত্যতা পান। 

পরে ওই ভুক্তভোগীরা আরও দুইবার চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। বিষয়টি বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত ও টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচার হয়।

চৌগাছা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা প্রকৌশলী এনামুল হক জানান, হাকিমপুর ইউপির সদস্য আক্তারুজ্জামান (মিলন) মেম্বারকে সাময়িক বরখাস্ত ও কারণ দর্শানো নোটিশ পাওয়া গেছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন