নামাজরত মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
নামাজরত মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

  কুমিল্লা ব্যুরো  

১১ অক্টোবর ২০২০, ১৯:০৮:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নামাজরত অবস্থায় মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আবু বকর নামে এক পাষণ্ড ছেলে। রোববার দুপুরে উপজেলার পাশাকোট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘাতক আবু বকর পাশাকোট গ্রামের ক্বারি আনোয়ার উল্লার ছেলে। সে বিডিআর বিদ্রোহ মামলার আসামি হিসেবে দীর্ঘদিন জেলে ছিল। জেল থেকে বের হওয়ার পর সে অনেকটা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

রোববার দুপুরে তার মা খায়েরুন নেছা (৮০) জোহরের নামাজ পড়া অবস্থায় ছেলে আবু বকর অতর্কিতভাবে ঘরে থাকা কুড়াল দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায়। এতে ঘটনাস্থলেই খায়রুন নেছার মৃত্যু হয়। ঘরের অন্য সদস্যদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ঘাতক ছেলে আবু বকরকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

চৌদ্দগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শুভরঞ্জন চাকমা বলেন, ঘাতক ছেলেকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

নামাজরত মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

 কুমিল্লা ব্যুরো 
১১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নামাজরত অবস্থায় মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আবু বকর নামে এক পাষণ্ড ছেলে। রোববার দুপুরে উপজেলার পাশাকোট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘাতক আবু বকর পাশাকোট গ্রামের ক্বারি আনোয়ার উল্লার ছেলে। সে বিডিআর বিদ্রোহ মামলার আসামি হিসেবে দীর্ঘদিন জেলে ছিল। জেল থেকে বের হওয়ার পর সে অনেকটা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

রোববার দুপুরে তার মা খায়েরুন নেছা (৮০) জোহরের নামাজ পড়া অবস্থায় ছেলে আবু বকর অতর্কিতভাবে ঘরে থাকা কুড়াল দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায়। এতে ঘটনাস্থলেই খায়রুন নেছার মৃত্যু হয়। ঘরের অন্য সদস্যদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ঘাতক ছেলে আবু বকরকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

চৌদ্দগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শুভরঞ্জন চাকমা বলেন, ঘাতক ছেলেকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন