ঝিনাইদহে আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে গৃহবধূ নিহত
jugantor
ঝিনাইদহে আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে গৃহবধূ নিহত

  ঝিনাইদহ ও শৈলকুপা প্রতিনিধি  

১২ অক্টোবর ২০২০, ১৩:০৩:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

দুপক্ষের সংঘর্ষ

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে এক নারী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও অন্তত পাঁচজন।

সোমবার সকালে উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের ভাটবাড়িয়া গ্রামের কারিকরপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের ভর্তি করা হয়েছে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করার খবর জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতের নাম সুফিয়া খাতুন (৫৬)। তিনি ওই গ্রামের জালাল উদ্দিনের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন ও পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জুলফিকার কাইসার টিপুর সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

ইউনিয়নটিতে নিত্যদিন এ দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ লেগেই আছে। এর জের ধরে সোমবার সকালে ভাটবাড়িয়া গ্রামের কারিকরপাড়ায় প্রতিপক্ষ টিপুর সমর্থক জালাল উদ্দিন ওরফে বদরের বাড়িতে বর্তমান চেয়ারম্যান সমর্থক একই গ্রামের আলাল উদ্দিন ও রেজাউলের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়।

এ সময় জালাল উদ্দিনের স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৪৫) বাধা দিলে হামলাকারীরা বল্লম দিয়ে আঘাত করে তাকে। ঘটনাস্থলেই নিহত হন সুফিয়া। এ সময় অন্তত পাঁচ বাড়িতে ভাঙচুর করে হামলাকারীরা।

শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. অনোয়ার সাইদ। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ঝিনাইদহে আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে গৃহবধূ নিহত

 ঝিনাইদহ ও শৈলকুপা প্রতিনিধি 
১২ অক্টোবর ২০২০, ০১:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দুপক্ষের সংঘর্ষ
ছবি: যুগান্তর

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে এক নারী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও অন্তত পাঁচজন।

সোমবার সকালে উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের ভাটবাড়িয়া গ্রামের কারিকরপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের ভর্তি করা হয়েছে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করার খবর জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতের নাম সুফিয়া খাতুন (৫৬)। তিনি ওই গ্রামের জালাল উদ্দিনের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন ও পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জুলফিকার কাইসার টিপুর সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

ইউনিয়নটিতে নিত্যদিন এ দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ লেগেই আছে। এর জের ধরে সোমবার সকালে ভাটবাড়িয়া গ্রামের কারিকরপাড়ায় প্রতিপক্ষ টিপুর সমর্থক জালাল উদ্দিন ওরফে বদরের বাড়িতে বর্তমান চেয়ারম্যান সমর্থক একই গ্রামের আলাল উদ্দিন ও রেজাউলের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়।

এ সময় জালাল উদ্দিনের স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৪৫) বাধা দিলে হামলাকারীরা বল্লম দিয়ে আঘাত করে তাকে। ঘটনাস্থলেই নিহত হন সুফিয়া। এ সময় অন্তত পাঁচ বাড়িতে ভাঙচুর করে হামলাকারীরা।

শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. অনোয়ার সাইদ। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন