জমি নিয়ে বিরোধ, ধর্ষণচেষ্টার মামলায় কারাগারে রিকশাচালক!
jugantor
জমি নিয়ে বিরোধ, ধর্ষণচেষ্টার মামলায় কারাগারে রিকশাচালক!

  রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি  

১৩ অক্টোবর ২০২০, ১৭:২১:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

ভুক্তভোগীর মা

লক্ষ্মীপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে অসহায় এক রিকশাচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে মামলা দেয়ার অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে।

রায়পুর-রামগঞ্জ সীমান্তবর্তী মধ্য মাছিমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ মামলায় তাকে গ্রেফতারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার হয়রানির শিকার রিকশাচালক বিল্লাল হোসেনের পরিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন।

বিল্লালের মা ফিরোজা বেগম অভিযোগ করেন, তার ছেলে বিল্লাল হোসেন গ্রামে রিকশা চালান। স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে তার সংসার। জমি নিয়ে একই বাড়ির ফিরোজ আলমের পরিবারের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল তার।

এছাড়াও সম্প্রতি টানা বৃষ্টির সময় ফিরোজ আলমের বসতঘরের টিনের চাল দিয়ে পানি পড়ে বিল্লালের বসতঘরসহ আসবাবপত্র ভিজে যাওয়া ও উঠানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে কয়েকবার উভয় পরিবারের মধ্যে ঝগড়া হয়।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ফিরোজ আলম ও তার স্ত্রী সালেহা বেগম তাদের পাঁচ বছরের শিশু মেয়েকে গত ২৫ সেপ্টেম্বর ও ৪ অক্টোবর দুপুরে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে রিকশাচালক বিল্লালের বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ করেন।

গত ৫ অক্টোবর সালেহা বেগম বাদি হয়ে বিল্লালের বিরুদ্ধে রামগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ বিল্লালকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেন।

বিল্লালের স্ত্রী, মা ও কয়েকজন গ্রামবাসী বলেন, বিরোধ জমি নিয়ে, অথচ মামলা দেয়া হয়েছে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার। বিল্লাল সারাদিন রিকশা চালানোয় ব্যস্ত সময় পার করেন। প্রতিপক্ষরা এলাকার প্রভাবশালীদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এখন নানারকম ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ফিরোজ আলম ও তার স্ত্রী সালেহা বেগম বলেন, রিকশাচালক বিল্লালসহ তার পরিবারের সঙ্গে আমাদের জমি নিয়ে কোনো বিরোধ নেই। আমার শিশুকে দুইবার বিল্লাল-তার ঘরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। মামলা করেছি। এখন আদালতেই বিল্লালের বিচার হবে।

রামগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) কার্তিক চন্দ্র বিশ্বাস জানান, পাঁচ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় রিকশাচালক বিল্লালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক সত্য-মিথ্যা যাচাই করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

জমি নিয়ে বিরোধ, ধর্ষণচেষ্টার মামলায় কারাগারে রিকশাচালক!

 রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি 
১৩ অক্টোবর ২০২০, ০৫:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভুক্তভোগীর মা
ভুক্তভোগীর মা। ছবি: যুগান্তর

লক্ষ্মীপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে অসহায় এক রিকশাচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে মামলা দেয়ার অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। 

রায়পুর-রামগঞ্জ সীমান্তবর্তী মধ্য মাছিমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ মামলায় তাকে গ্রেফতারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার হয়রানির শিকার রিকশাচালক বিল্লাল হোসেনের পরিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন।

বিল্লালের মা ফিরোজা বেগম অভিযোগ করেন, তার ছেলে বিল্লাল হোসেন গ্রামে রিকশা চালান। স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে তার সংসার। জমি নিয়ে একই বাড়ির ফিরোজ আলমের পরিবারের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল তার।

এছাড়াও সম্প্রতি টানা বৃষ্টির সময় ফিরোজ আলমের বসতঘরের টিনের চাল দিয়ে পানি পড়ে বিল্লালের বসতঘরসহ আসবাবপত্র ভিজে যাওয়া ও উঠানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে কয়েকবার উভয় পরিবারের মধ্যে ঝগড়া হয়।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ফিরোজ আলম ও তার স্ত্রী সালেহা বেগম তাদের পাঁচ বছরের শিশু মেয়েকে গত ২৫ সেপ্টেম্বর ও ৪ অক্টোবর দুপুরে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে রিকশাচালক বিল্লালের বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ করেন।

গত ৫ অক্টোবর সালেহা বেগম বাদি হয়ে বিল্লালের বিরুদ্ধে রামগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ বিল্লালকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেন।

বিল্লালের স্ত্রী, মা ও কয়েকজন গ্রামবাসী বলেন, বিরোধ জমি নিয়ে, অথচ মামলা দেয়া হয়েছে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার। বিল্লাল সারাদিন রিকশা চালানোয় ব্যস্ত সময় পার করেন। প্রতিপক্ষরা এলাকার প্রভাবশালীদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এখন নানারকম ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ফিরোজ আলম ও তার স্ত্রী সালেহা বেগম বলেন, রিকশাচালক বিল্লালসহ তার পরিবারের সঙ্গে আমাদের জমি নিয়ে কোনো বিরোধ নেই। আমার শিশুকে দুইবার বিল্লাল-তার ঘরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। মামলা করেছি। এখন আদালতেই বিল্লালের বিচার হবে।

রামগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) কার্তিক চন্দ্র বিশ্বাস জানান, পাঁচ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় রিকশাচালক বিল্লালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক সত্য-মিথ্যা যাচাই করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন