সবজির সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা!
jugantor
সবজির সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা!

  শেরপুর প্রতিনিধি  

১৪ অক্টোবর ২০২০, ২২:৫৪:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে কানু মিয়া নামে এক কৃষকের আবাদকৃত লাউ ও চিচিঙ্গার গাছ কেটে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। বুধবার ভোরে সদর উপজেলার চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের সাতপাকিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কৃষক।

ওই ঘটনায় তিনজনের নামে উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরও ৬-৭ জনের বিরুদ্ধে শেরপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক কানু মিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় সিরাজুল ইসলামের ছেলে কৃষক কানু মিয়া প্রতি বছরের মতো এবারও প্রায় ১০ কাঠা জমিতে লাউ ও চিচিঙ্গার আবাদ করেছিলেন। এতে জমি চাষ, সার-বীজ ও মজুরিসহ গত ৬ মাসে তার প্রায় দেড় লাখ টাকা খরচ হয়েছে। ফলনও হয়েছিল বেশ ভালো। দুই দিন আগে প্রায় ১১ হাজার টাকার লাউ তুলে বিক্রিও করেছিলেন।

বুধবার ভোরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে একই গ্রামের হাসেন আলীর ছেলে লাভলু মিয়া এবং তার ২ ছেলে আরিফ মিয়া ও মিজান মিয়াসহ বেশ কয়েকজন দুর্বৃত্ত শত্রুতাবশত কৃষক কানু মিয়ার লাউ ক্ষেতের প্রায় সব গাছের গোড়া কেটে দেয়। সেই সঙ্গে চিচিঙ্গা ক্ষেতের গাছ উপড়ে ফেলে এবং মাচা ভেঙে ফেলে।

কৃষক কানু মিয়া জানান, লাভলু মিয়া এবং তার ২ ছেলে আরিফ মিয়া ও মিজান মিয়া আমাকে এর আগেও ক্ষতি করার হুমকি দিয়েছিল। ওই পূর্বশত্রুতার জের ধরে তারা আমার জমির ফসল নষ্ট করেছে। এখন আমার পথে বসার জোগাড় হয়েছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকবর আলী জানান, এই এলাকাতে আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। কাজটি যে বা যারাই করুক আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। সেই সঙ্গে দ্রুত এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ওই ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সবজির সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা!

 শেরপুর প্রতিনিধি 
১৪ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে কানু মিয়া নামে এক কৃষকের আবাদকৃত লাউ ও চিচিঙ্গার গাছ কেটে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। বুধবার ভোরে সদর উপজেলার চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের সাতপাকিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কৃষক।

ওই ঘটনায় তিনজনের নামে উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরও ৬-৭ জনের বিরুদ্ধে শেরপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক কানু মিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় সিরাজুল ইসলামের ছেলে কৃষক কানু মিয়া প্রতি বছরের মতো এবারও প্রায় ১০ কাঠা জমিতে লাউ ও চিচিঙ্গার আবাদ করেছিলেন। এতে জমি চাষ, সার-বীজ ও মজুরিসহ গত ৬ মাসে তার প্রায় দেড় লাখ টাকা খরচ হয়েছে। ফলনও হয়েছিল বেশ ভালো। দুই দিন আগে প্রায় ১১ হাজার টাকার লাউ তুলে বিক্রিও করেছিলেন।

বুধবার ভোরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে একই গ্রামের হাসেন আলীর ছেলে লাভলু মিয়া এবং তার ২ ছেলে আরিফ মিয়া ও মিজান মিয়াসহ বেশ কয়েকজন দুর্বৃত্ত শত্রুতাবশত কৃষক কানু মিয়ার লাউ ক্ষেতের প্রায় সব গাছের গোড়া কেটে দেয়। সেই সঙ্গে চিচিঙ্গা ক্ষেতের গাছ উপড়ে ফেলে এবং মাচা ভেঙে ফেলে।

কৃষক কানু মিয়া জানান, লাভলু মিয়া এবং তার ২ ছেলে আরিফ মিয়া ও মিজান মিয়া আমাকে এর আগেও ক্ষতি করার হুমকি দিয়েছিল। ওই পূর্বশত্রুতার জের ধরে তারা আমার জমির ফসল নষ্ট করেছে। এখন আমার পথে বসার জোগাড় হয়েছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকবর আলী জানান, এই এলাকাতে আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। কাজটি যে বা যারাই করুক আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। সেই সঙ্গে দ্রুত এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ওই ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন