মাধ্যমিকের গণ্ডি না পেরুলেও তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক!
jugantor
মাধ্যমিকের গণ্ডি না পেরুলেও তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক!

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৫ অক্টোবর ২০২০, ২২:২২:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক

বিদ্যালয়ের মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরুতে না পারলেও বিশেষজ্ঞ (মা, শিশু রোগ ও সার্জারিতে অভিজ্ঞ) চিকিৎসক মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৫)। বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে তাকে হাতেনাতে আটক করে অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এমবিবিএস ডিগ্রি নেই, নেই শিক্ষাগত যোগ্যতাও। তবুও তিনি ব্যবস্থাপত্রে ও ফার্মেসির নামফলকে তার চিকিৎসক (ডা.) পদবি ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের ফতেয়াবাদ বটতলী এলাকায় মোহছেনা আউলিয়া ফার্মেসিতে মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৫) নামের এক ভুয়া চিকিৎসককে হাতেনাতে আটক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ফার্মেসিটি সিলগালা করে দেন। এছাড়া ভুয়া সার্টিফিকেট তৈরি করে ফার্মেসিতে বসে চিকিৎসাসেবার নামে জনসাধারণের সঙ্গে প্রতারণা করার দায়ে ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন বলে জানান ইউএনও রুহুল আমিন।

মাধ্যমিকের গণ্ডি না পেরুলেও তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক!

 হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৫ অক্টোবর ২০২০, ১০:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক
মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক

বিদ্যালয়ের মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরুতে না পারলেও বিশেষজ্ঞ (মা, শিশু রোগ ও সার্জারিতে অভিজ্ঞ) চিকিৎসক মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৫)। বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে তাকে হাতেনাতে আটক করে অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এমবিবিএস ডিগ্রি নেই, নেই শিক্ষাগত যোগ্যতাও। তবুও তিনি ব্যবস্থাপত্রে ও ফার্মেসির নামফলকে তার চিকিৎসক (ডা.) পদবি ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের ফতেয়াবাদ বটতলী এলাকায় মোহছেনা আউলিয়া ফার্মেসিতে মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক (৪৫) নামের এক ভুয়া চিকিৎসককে হাতেনাতে আটক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ফার্মেসিটি সিলগালা করে দেন। এছাড়া ভুয়া সার্টিফিকেট তৈরি করে ফার্মেসিতে বসে চিকিৎসাসেবার নামে জনসাধারণের সঙ্গে প্রতারণা করার দায়ে ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন বলে জানান ইউএনও রুহুল আমিন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন