যুগান্তরে নিউজ প্রকাশের আধাঘণ্টার মধ্যেই আসামি গ্রেফতার
jugantor
যুগান্তরে নিউজ প্রকাশের আধাঘণ্টার মধ্যেই আসামি গ্রেফতার

  কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি  

১৮ অক্টোবর ২০২০, ২২:০৩:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

যুগান্তরে প্রকাশিত হওয়ার আধাঘণ্টার মধ্যেই কুমারখালী থানা পুলিশ আসামি শুকুর আলীকে গ্রেফতার করেছে।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আনছার আলীর বাড়িতে কামরুজ্জামান (১৬) নামের এক স্কুলছাত্রকে আটক করে রড ও লাঠি দিয়ে রাতভর পিটিয়ে দশ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনার সংবাদ যুগান্তরে প্রকাশিত হওয়ার আধাঘণ্টার মধ্যেই কুমারখালী থানা পুলিশ আসামি শুকুর আলীকে গ্রেফতার করেছে। রোববার এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরেক আসামি তাইজালকে গ্রেফতার ও তাকে প্রধান করে চারজনের নামে মামলা দায়ের করেন ওই ছাত্রের চাচা সোহেল।

স্থানীয়, পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের বুরুরিয়া গ্রামের কৃষক সমসের আলীর ছেলে দশম শ্রেণির ছাত্র কামরুজ্জামান বোনের বাড়ির উদ্দেশে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মসজিদের সামনে পৌঁছলে ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আনছার মিস্ত্রির ছেলে শুকুর আলী, বাবলু মোল্লার ছেলে রানা, মৃত মসলেম মোল্লার ছেলে তাইজাল ও আনোয়ার মাস্টারের ছেলে রয়েল আওয়ামী লীগ সভাপতি আনছার মিস্ত্রির বাড়িতে নিয়ে তাকে আটকে রাখে। এরপর রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে স্কুলছাত্রের পরিবারকে ফোন দেয়।

ভোড় ৫টার দিকে ফোন পেয়ে ছাত্রের চাচা বাদশা ও সোহেল রিক্সাযোগে দ্রুত সভাপতির বাড়িতে পৌঁছলে চাঁদাবাজ শুকুর তাদের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে কামরুজ্জামানকে মেরে ফেলার অথবা মাদক দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার হুমকি দেয়। পরে তারা হাত-পা ধরে পরদিন দুপুরে ১০ হাজার টাকা শুকুরের হাতে তুলে দিয়ে স্কুলছাত্রকে নিয়ে কোনোমতে প্রাণ নিয়ে বাড়ি ফেরেন।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুনুর রশীদ বলেন, স্কুলছাত্রকে আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় মামলা হয়েছে। মুক্তিপণের টাকা উদ্ধারসহ প্রধান দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, মামলার বাদী ও পরিবারকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

যুগান্তরে নিউজ প্রকাশের আধাঘণ্টার মধ্যেই আসামি গ্রেফতার

 কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি 
১৮ অক্টোবর ২০২০, ১০:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যুগান্তরে প্রকাশিত হওয়ার আধাঘণ্টার মধ্যেই কুমারখালী থানা পুলিশ আসামি শুকুর আলীকে গ্রেফতার করেছে।
যুগান্তরে প্রকাশিত হওয়ার আধাঘণ্টার মধ্যেই কুমারখালী থানা পুলিশ আসামি শুকুর আলীকে গ্রেফতার করেছে।

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আনছার আলীর বাড়িতে কামরুজ্জামান (১৬) নামের এক স্কুলছাত্রকে আটক করে রড ও লাঠি দিয়ে রাতভর পিটিয়ে দশ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনার সংবাদ যুগান্তরে প্রকাশিত হওয়ার আধাঘণ্টার মধ্যেই কুমারখালী থানা পুলিশ আসামি শুকুর আলীকে গ্রেফতার করেছে। রোববার এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরেক আসামি তাইজালকে গ্রেফতার ও তাকে প্রধান করে চারজনের নামে মামলা দায়ের করেন ওই ছাত্রের চাচা সোহেল। 

স্থানীয়, পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের বুরুরিয়া গ্রামের কৃষক সমসের আলীর ছেলে দশম শ্রেণির ছাত্র কামরুজ্জামান বোনের বাড়ির উদ্দেশে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের মসজিদের সামনে পৌঁছলে ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আনছার মিস্ত্রির ছেলে শুকুর আলী, বাবলু মোল্লার ছেলে রানা, মৃত মসলেম মোল্লার ছেলে তাইজাল ও আনোয়ার মাস্টারের ছেলে রয়েল আওয়ামী লীগ সভাপতি আনছার মিস্ত্রির বাড়িতে নিয়ে তাকে আটকে রাখে। এরপর রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে স্কুলছাত্রের পরিবারকে ফোন দেয়।

ভোড় ৫টার দিকে ফোন পেয়ে ছাত্রের চাচা বাদশা ও সোহেল রিক্সাযোগে দ্রুত সভাপতির বাড়িতে পৌঁছলে চাঁদাবাজ শুকুর তাদের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে কামরুজ্জামানকে মেরে ফেলার অথবা মাদক দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার হুমকি দেয়। পরে তারা হাত-পা ধরে পরদিন দুপুরে ১০ হাজার টাকা শুকুরের হাতে তুলে দিয়ে স্কুলছাত্রকে নিয়ে কোনোমতে প্রাণ নিয়ে বাড়ি ফেরেন।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুনুর রশীদ বলেন, স্কুলছাত্রকে আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় মামলা হয়েছে। মুক্তিপণের টাকা উদ্ধারসহ প্রধান দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, মামলার বাদী ও পরিবারকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন