প্রতিমায় রংতুলির শেষ আঁচড়ে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা, উৎসবমুখর পরিবেশে ভাটা
jugantor
প্রতিমায় রংতুলির শেষ আঁচড়ে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা, উৎসবমুখর পরিবেশে ভাটা

  আবু তালেব, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম)  

১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৩৪:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

ষড়ঋতুর এ দেশে প্রতিবছর শরৎকাল এলেই মা দুর্গার আগমনী বার্তা চারদিকে বেজে উঠলেও এ বছর কালের পরিক্রমায় শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে কার্তিক মাসে। দিন পঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে।

আগামী ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে দেবীকে আহ্বান করবেন ভক্তরা। ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে ৫ দিনব্যাপী এ দুর্গাপূজা শেষ হবে। তবে মহামারী করোনাভাইরাসের প্রকোপে কিছুটা হলেও জনমনে সংশয় নিয়ে পূজার প্রস্তুতি শেষ করেছে সনাতন সম্প্রদায়ের লোকজন।

যদিও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু হয় কয়েক মাস আগে থেকেই।

সোমবার সকালে হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের নন্দিরহাট এলাকার দয়াময়ী কালীমন্দিরে গিয়ে দেখা গেছে, হরেক রকমের রঙের ছড়াছড়ি। সাদা রঙের প্রতিমাগুলো জ্বলজ্বল করছে। একেকটি পাত্রে লাল, গোলাপি, হলুদ, সবুজসহ নানা রং রাখা। কেউ রং লাগাচ্ছেন, কেউ প্রতিমা সাজিয়ে দিচ্ছেন।

এ সময় আরও দেখা গেছে, শরীয়তপুর জেলা থেকে উপজেলার নন্দিরহাট এলাকায় প্রতিবছরের মতো প্রতিমা তৈরি করতে আসা পঞ্চাশোর্ধ্ব গণেশ পাল তার সহকর্মীদের নিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ব্যস্ত নানা আকারের বানানো দুর্গা প্রতিমায় রংতুলির শেষ আঁচড় আঁকতে। এছাড়া মৃৎশিল্পীরা তার সহকর্মীদের একেকজনকে একেক নির্দেশনা দিচ্ছিলেন- কোনটায় (প্রতিমা) কী রং দিতে হবে।

দিনপঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে বলে জানান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান শিপক কৃষ্ণ দেবনাথ। তিনি জানান, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে অন্যতম ও পবিত্র একটি ধর্মানুষ্ঠান হল দুর্গাপূজা তথা শারদীয় দুর্গোৎসব। সাধারণত আশ্বিন মাসের শুক্লপক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন পর্যন্ত শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হলেও এ বছর দিনপঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে।

প্রতিমায় রংতুলির শেষ আঁচড়ে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা, উৎসবমুখর পরিবেশে ভাটা

 আবু তালেব, হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) 
১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ষড়ঋতুর এ দেশে প্রতিবছর শরৎকাল এলেই মা দুর্গার আগমনী বার্তা চারদিকে বেজে উঠলেও এ বছর কালের পরিক্রমায় শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে কার্তিক মাসে। দিন পঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে।

আগামী ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মাধ্যমে দেবীকে আহ্বান করবেন ভক্তরা। ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে ৫ দিনব্যাপী এ দুর্গাপূজা শেষ হবে। তবে মহামারী করোনাভাইরাসের প্রকোপে কিছুটা হলেও জনমনে সংশয় নিয়ে পূজার প্রস্তুতি শেষ করেছে সনাতন সম্প্রদায়ের লোকজন।

যদিও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু হয় কয়েক মাস আগে থেকেই।

সোমবার সকালে হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের নন্দিরহাট এলাকার দয়াময়ী কালীমন্দিরে গিয়ে দেখা গেছে, হরেক রকমের রঙের ছড়াছড়ি। সাদা রঙের প্রতিমাগুলো জ্বলজ্বল করছে। একেকটি পাত্রে লাল, গোলাপি, হলুদ, সবুজসহ নানা রং রাখা। কেউ রং লাগাচ্ছেন, কেউ প্রতিমা সাজিয়ে দিচ্ছেন।

এ সময় আরও দেখা গেছে, শরীয়তপুর জেলা থেকে উপজেলার নন্দিরহাট এলাকায় প্রতিবছরের মতো প্রতিমা তৈরি করতে আসা পঞ্চাশোর্ধ্ব গণেশ পাল তার সহকর্মীদের নিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ব্যস্ত নানা আকারের বানানো দুর্গা প্রতিমায় রংতুলির শেষ আঁচড় আঁকতে। এছাড়া মৃৎশিল্পীরা তার সহকর্মীদের একেকজনকে একেক নির্দেশনা দিচ্ছিলেন- কোনটায় (প্রতিমা) কী রং দিতে হবে।

দিনপঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে বলে জানান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান শিপক কৃষ্ণ দেবনাথ। তিনি জানান, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে অন্যতম ও পবিত্র একটি ধর্মানুষ্ঠান হল দুর্গাপূজা তথা শারদীয় দুর্গোৎসব। সাধারণত আশ্বিন মাসের শুক্লপক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন পর্যন্ত শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হলেও এ বছর দিনপঞ্জিকা অনুযায়ী মল মাসের কারণে এ বছর পূজা একটু দেরিতে শুরু হচ্ছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন