হোমনায় শিক্ষকদের নিয়ে কর্মকর্তার পিকনিক, সমালোচনার ঝড়
jugantor
হোমনায় শিক্ষকদের নিয়ে কর্মকর্তার পিকনিক, সমালোচনার ঝড়

  হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৩৯:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার হোমনায় উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিইও) খাদিজা আক্তারের নেতৃত্বে নৌ-ভ্রমণ (পিকনিকে) নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। রোববার আড়াইহাজার উপজেলার স্বপ্নদ্বীপ নামক স্থানে নৌ-ভ্রমণের আয়োজন করা হয়।

এতে উপজেলার ৪০ জন শিক্ষিকা একই রঙের শাড়ি পরে পিকনিকে গিয়ে ক্রিকেটসহ বিভিন্ন খেলাধুলার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করলে তা ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায়, করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব মানা হয়নি। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে।

জানা গেছে, এ পিকনিকে শাড়ির জন্য ৮০০ এবং নৌ-ভ্রমণের জন্য চাঁদা নেয়া হয়েছে ৫০০ টাকা।

এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা খাদিজা আক্তার বলেন, শিক্ষকরা প্রায় ৮ মাস যাবত বাসায় থাকতে থাকতে বোরিং ফিল করায় এ নৌ-ভ্রমণের আয়োজন করা হয়।

এ পিকনিকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছিল কিনা-এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, না এ বিষয়ে অফিস জানে না। এখন তো স্কুল বন্ধ। আর আমি অফিস থেকে ছুটি নিয়ে এ ভ্রমণে গিয়েছি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা মাহমুদা বেগম বলেন, এ বিষয়ে আমি অবগত নই। যদি এমনটি হয়ে থাকে তা উচিত হয়নি। বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

হোমনায় শিক্ষকদের নিয়ে কর্মকর্তার পিকনিক, সমালোচনার ঝড়

 হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার হোমনায় উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিইও) খাদিজা আক্তারের নেতৃত্বে নৌ-ভ্রমণ (পিকনিকে) নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। রোববার আড়াইহাজার উপজেলার স্বপ্নদ্বীপ নামক স্থানে নৌ-ভ্রমণের আয়োজন করা হয়।

এতে উপজেলার ৪০ জন শিক্ষিকা একই রঙের শাড়ি পরে পিকনিকে গিয়ে ক্রিকেটসহ বিভিন্ন খেলাধুলার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করলে তা ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায়, করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব মানা হয়নি। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে।

জানা গেছে, এ পিকনিকে শাড়ির জন্য ৮০০ এবং নৌ-ভ্রমণের জন্য চাঁদা নেয়া হয়েছে ৫০০ টাকা।

এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা খাদিজা আক্তার বলেন, শিক্ষকরা প্রায় ৮ মাস যাবত বাসায় থাকতে থাকতে বোরিং ফিল করায় এ নৌ-ভ্রমণের আয়োজন করা হয়।

এ পিকনিকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছিল কিনা-এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, না এ বিষয়ে অফিস জানে না। এখন তো স্কুল বন্ধ। আর আমি অফিস থেকে ছুটি নিয়ে এ ভ্রমণে গিয়েছি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা মাহমুদা বেগম বলেন, এ বিষয়ে আমি অবগত নই। যদি এমনটি হয়ে থাকে তা উচিত হয়নি। বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন