সাড়ে ১২ লাখ টাকাভর্তি ব্যাগ ৩০ সেকেন্ডেই হাওয়া
jugantor
সাড়ে ১২ লাখ টাকাভর্তি ব্যাগ ৩০ সেকেন্ডেই হাওয়া

  রংপুর ব্যুরো  

১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৯:১৭:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বের হয়ে মোটরসাইকেলের তালা খুলছিলেন সুজাউল ইসলাম। টাকার ব্যাগটি রেখেছিলেন মোটরসাইকেলের হাতলে। তালা খুলে মাথা তুলেই দেখেন টাকার ব্যাগটি আর নেই। এরপর তিনি দিশেহারা হয়ে ঘটনাস্থলে বসে কান্নাকাটি করতে থাকেন। খবর পেয়ে তার স্ত্রীও সেখানে ছুটে আসেন। ঘটনাস্থলে শত শত মানুষ জড়ো হয়ে যান।

রংপুর নগরের ব্যস্ততম কাছারিবাজার এলাকায় সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। টাকা খোয়া যাওয়া স্থানের সড়কের ওপারে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কার্যালয় অবস্থিত। এ পাশে কোর্ট মসজিদ ও মৌবন হোটেল। ফলে এলাকাটিতে সব সময় মানুষের সমাগম থাকে।

টাকা ছিনতাই হওয়া ব্যক্তি সুজাউল ইসলামের বাড়ি নগরের কেরানীপাড়া এলাকায়। তিনি একজন ব্যবসায়ী। খোয়া যাওয়া ব্যাগে সাড়ে ১২ লাখ টাকা ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

সুজাউল ইসলাম বলেন, শহরের কাছারিবাজার এলাকায় আইনজীবী সমিতি ভবনের দোতলায় অবস্থিত সোনালী ব্যাংক থেকে বেলা ১১টার দিকে সাড়ে ১২ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। পরে টাকাগুলো একটি ব্যাগে নিয়ে সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামেন। ভবনের নিচে টাকার ব্যাগটি তিনি তার মোটরসাইকেলের হাতলে রেখে মাথা নিচু করে গাড়ির তালা খুলতে থাকেন। ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে তালা খুলে দেখেন টাকার ব্যাগ নেই।

ওই এলাকার একাধিক ব্যক্তি বলেন, এই এলাকায় অনেক মানুষের সমাগম ঘটে। এর মধ্যে থেকে কারও একার পক্ষে এভাবে টাকা নিয়ে উধাও হওয়া সম্ভব নয়। ছিনতাইকারীর এই দলে একাধিক সদস্য থাকতে পারে।

কোতোয়ালি থানার ওসি আবদুর রশীদ বলেন, ঘটনাস্থলের আশপাশের দোকানপাটের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া সোনালী ব্যাংকসহ রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহসহ তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করতে চেষ্টা চলছে।

সাড়ে ১২ লাখ টাকাভর্তি ব্যাগ ৩০ সেকেন্ডেই হাওয়া

 রংপুর ব্যুরো 
১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৭:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বের হয়ে মোটরসাইকেলের তালা খুলছিলেন সুজাউল ইসলাম। টাকার ব্যাগটি রেখেছিলেন মোটরসাইকেলের হাতলে। তালা খুলে মাথা তুলেই দেখেন টাকার ব্যাগটি আর নেই। এরপর তিনি দিশেহারা হয়ে ঘটনাস্থলে বসে কান্নাকাটি করতে থাকেন। খবর পেয়ে তার স্ত্রীও সেখানে ছুটে আসেন। ঘটনাস্থলে শত শত মানুষ জড়ো হয়ে যান।

রংপুর নগরের ব্যস্ততম কাছারিবাজার এলাকায় সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। টাকা খোয়া যাওয়া স্থানের সড়কের ওপারে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কার্যালয় অবস্থিত। এ পাশে কোর্ট মসজিদ ও মৌবন হোটেল। ফলে এলাকাটিতে সব সময় মানুষের সমাগম থাকে।

টাকা ছিনতাই হওয়া ব্যক্তি সুজাউল ইসলামের বাড়ি নগরের কেরানীপাড়া এলাকায়। তিনি একজন ব্যবসায়ী। খোয়া যাওয়া ব্যাগে সাড়ে ১২ লাখ টাকা ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

সুজাউল ইসলাম বলেন, শহরের কাছারিবাজার এলাকায় আইনজীবী সমিতি ভবনের দোতলায় অবস্থিত সোনালী ব্যাংক থেকে বেলা ১১টার দিকে সাড়ে ১২ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। পরে টাকাগুলো একটি ব্যাগে নিয়ে সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামেন। ভবনের নিচে টাকার ব্যাগটি তিনি তার মোটরসাইকেলের হাতলে রেখে মাথা নিচু করে গাড়ির তালা খুলতে থাকেন। ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে তালা খুলে দেখেন টাকার ব্যাগ নেই।

ওই এলাকার একাধিক ব্যক্তি বলেন, এই এলাকায় অনেক মানুষের সমাগম ঘটে। এর মধ্যে থেকে কারও একার পক্ষে এভাবে টাকা নিয়ে উধাও হওয়া সম্ভব নয়। ছিনতাইকারীর এই দলে একাধিক সদস্য থাকতে পারে।

কোতোয়ালি থানার ওসি আবদুর রশীদ বলেন, ঘটনাস্থলের আশপাশের দোকানপাটের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া সোনালী ব্যাংকসহ রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহসহ তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করতে চেষ্টা চলছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন