দ্বিতীয় দিনেও কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ
jugantor
দ্বিতীয় দিনেও কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ

  শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

২০ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৫:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দ্বিতীয় দিনেও কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ

নাব্যতা সংকটের কারণে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে দ্বিতীয় দিনের মতো বন্ধ রয়েছে লঞ্চ চলাচল; একই সঙ্গে ফেরি চলাচলও স্বাভাবিক হয়নি।

নৌরুটের চ্যানেলে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলাচলের অচলাবস্থার পর এবার লঞ্চ চলাচলও হুমকির মুখে পড়েছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে দক্ষিণাঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ। লঞ্চ বন্ধ থাকায় স্পিডবোট ও ট্রলারে ঝুঁকি নিয়ে পার হতে হচ্ছে পদ্মা নদী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নৌরুটের চায়না চ্যানেলে নাব্যতা সংকট থাকায় গত কয়েক মাস ধরেই ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। কখনও ৪-৫টি ফেরি চলে আবার কখনও সম্পূর্ণ বন্ধ থাকে।

গত কয়েক মাস ধরে এ সমস্যা বিরাজ করায় দূরপাল্লার পরিবহন ও পণ্যবাহী ট্রাক বিকল্প রুট হিসেবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুট ব্যবহার করে আসছে।

এদিকে ক্রমান্বয়ে চ্যানেলে পানি কমতে থাকায় গত এক সপ্তাহ ধরেই লঞ্চ চলাচল ব্যাহত হচ্ছিল। চ্যানেল অতিক্রম করতে গিয়ে লঞ্চের তলদেশ ডুবোচরে প্রায়ই আটকে যেত।
তা ছাড়া ডুবোচরে ধাক্কা লেগে গত এক সপ্তাহে কয়েকটি লঞ্চই দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। গত সোমবার সকালে চ্যানেলের নাব্যতা সংকট প্রকট আকার ধারণ করলে লঞ্চ বন্ধ রাখেন মালিক ও চালকরা। বিকালের দিকে ছোট ১৫-২০টি লঞ্চ চললেও সন্ধ্যায় ডুবোচরে প্রায় এক ঘণ্টারও বেশি সময় একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ আটকা পড়ে।

দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা চালিয়ে লঞ্চটি ডুবোচর মুক্ত হলেও শিমুলিয়াঘাটে যেতে না পেরে কাঁঠালবাড়ীঘাটে ফিরে আসে। একই কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকেও লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ীঘাট সূত্রে জানা গেছে, নাব্যতা সংকটের কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকেও বন্ধ রয়েছে লঞ্চ চলাচল। তবে স্পিডবোট চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

লঞ্চ বন্ধ থাকায় স্পিডবোটে যাত্রীদের চাপ বেশি। এ ছাড়া নৌরুটে ফেরি চলাচলও স্বাভাবিক হয়নি। বন্ধ রয়েছে সব ধরনের ফেরি চলাচল।

বিআইডব্লিউটিসির কাঁঠালবাড়ী ফেরিঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক শামসুল আবেদীন বলেন, ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। নাব্যতা সংকটের কারণে এখন পর্যন্ত কোনো ফেরিই চলতে পারছে না।’

বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ী লঞ্চঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বলেন, সকাল থেকে নাব্যতা সংকটের কারণে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রেখেছে লঞ্চমালিক ও চালকরা। চ্যানেলে যে পরিমাণ পানি আছে তাতে করে লঞ্চ চ্যানেল অতিক্রম করতে পারছে না। ঠেকে যাচ্ছে ডুবোচরে। মঙ্গলবার সকাল থেকে সব লঞ্চই বন্ধ রয়েছে।

দ্বিতীয় দিনেও কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ

 শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
২০ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দ্বিতীয় দিনেও কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ
ফাইল ছবি

নাব্যতা সংকটের কারণে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে দ্বিতীয় দিনের মতো বন্ধ রয়েছে লঞ্চ চলাচল; একই সঙ্গে ফেরি চলাচলও স্বাভাবিক হয়নি।

নৌরুটের চ্যানেলে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলাচলের অচলাবস্থার পর এবার লঞ্চ চলাচলও হুমকির মুখে পড়েছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে দক্ষিণাঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ। লঞ্চ বন্ধ থাকায় স্পিডবোট ও ট্রলারে ঝুঁকি নিয়ে পার হতে হচ্ছে পদ্মা নদী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নৌরুটের চায়না চ্যানেলে নাব্যতা সংকট থাকায় গত কয়েক মাস ধরেই ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। কখনও ৪-৫টি ফেরি চলে আবার কখনও সম্পূর্ণ বন্ধ থাকে।

গত কয়েক মাস ধরে এ সমস্যা বিরাজ করায় দূরপাল্লার পরিবহন ও পণ্যবাহী ট্রাক বিকল্প রুট হিসেবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুট ব্যবহার করে আসছে।

এদিকে ক্রমান্বয়ে চ্যানেলে পানি কমতে থাকায় গত এক সপ্তাহ ধরেই লঞ্চ চলাচল ব্যাহত হচ্ছিল। চ্যানেল অতিক্রম করতে গিয়ে লঞ্চের তলদেশ ডুবোচরে প্রায়ই আটকে যেত।
তা ছাড়া ডুবোচরে ধাক্কা লেগে গত এক সপ্তাহে কয়েকটি লঞ্চই দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। গত সোমবার সকালে চ্যানেলের নাব্যতা সংকট প্রকট আকার ধারণ করলে লঞ্চ বন্ধ রাখেন মালিক ও চালকরা। বিকালের দিকে ছোট ১৫-২০টি লঞ্চ চললেও সন্ধ্যায় ডুবোচরে প্রায় এক ঘণ্টারও বেশি সময় একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ আটকা পড়ে।

দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা চালিয়ে লঞ্চটি ডুবোচর মুক্ত হলেও শিমুলিয়াঘাটে যেতে না পেরে কাঁঠালবাড়ীঘাটে ফিরে আসে। একই কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকেও লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ীঘাট সূত্রে জানা গেছে, নাব্যতা সংকটের কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকেও বন্ধ রয়েছে লঞ্চ চলাচল। তবে স্পিডবোট চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

লঞ্চ বন্ধ থাকায় স্পিডবোটে যাত্রীদের চাপ বেশি। এ ছাড়া নৌরুটে ফেরি চলাচলও স্বাভাবিক হয়নি। বন্ধ রয়েছে সব ধরনের ফেরি চলাচল।

বিআইডব্লিউটিসির কাঁঠালবাড়ী ফেরিঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক শামসুল আবেদীন বলেন, ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। নাব্যতা সংকটের কারণে এখন পর্যন্ত কোনো ফেরিই চলতে পারছে না।’

বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ী লঞ্চঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বলেন, সকাল থেকে নাব্যতা সংকটের কারণে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রেখেছে লঞ্চমালিক ও চালকরা। চ্যানেলে যে পরিমাণ পানি আছে তাতে করে লঞ্চ চ্যানেল অতিক্রম করতে পারছে না। ঠেকে যাচ্ছে ডুবোচরে। মঙ্গলবার সকাল থেকে সব লঞ্চই বন্ধ রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন