ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি!
jugantor
ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি!

  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি  

২১ অক্টোবর ২০২০, ২০:০৬:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মাদারগঞ্জ গ্রামের শ্রী শ্রী রশিক রায় জিউ মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বুধবার বিকালে এ আদেশ জারি করে প্রশাসন।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জারিকৃত আদেশ কার্যকর করা হবে। পরবর্তী নির্দেশ দেয়া না পর্যন্ত (দুর্গাপূজা শেষ না হওয়া পর্যন্ত) তা বলবত থাকবে।

আউলিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান নজু জানান, শ্রী শ্রী রশিক রায় জিউ মন্দিরের জমির দখল নিয়ে হিন্দুধর্মের দুই মতানুসারীদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমির মালিকা দাবি করে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে ২০০৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রশিক রায় জিউ মন্দিরে দুর্গাপূজা নিয়ে ইসকনপন্থী ও সাধারণ হিন্দুদের মধ্যে সংঘর্ষ ও হামলা হয়।

তিনি জানান, ইসকন ভক্তদের হামলায় শ্রী ফুলবাবু (৩৫) নামে এক ভ্যান শ্রমিক নিহত হন। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উপজেলা প্রশাসন মন্দির সিলগালা করে কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব নেয়। এ থেকে ওই মন্দিরে পূজার সময় সংঘর্ষ বা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার আশঙ্কায় স্থানীয় প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে। এবারও একই পদক্ষেপ নেয় প্রশাসন।

তবে এ ঘটনার অবসানের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। আউলিয়াপুর ইউপি সাবেক ইউপি সদস্য ও মাদারগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দারা বলেন, কতদিন গ্রামবাসীরা ভয়ভীতি ও অশান্তির মধ্যে বিশেষ করে দুর্গোৎসবে পূজা অর্চনা করবে। ঘটনার পরিসমাপ্তি হওয়া দরকার।

ঠাকুরগাঁও থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম বলেন, স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য ইউএনও উদ্যোগ নিয়েছেন। পূজা শেষ হলে দুই পক্ষকে নিয়ে আলোচনায় বসা হবে।

ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি!

 ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি 
২১ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মাদারগঞ্জ গ্রামের শ্রী শ্রী রশিক রায় জিউ মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বুধবার বিকালে এ আদেশ জারি করে প্রশাসন।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জারিকৃত আদেশ কার্যকর করা হবে। পরবর্তী নির্দেশ দেয়া না পর্যন্ত (দুর্গাপূজা শেষ না হওয়া পর্যন্ত) তা বলবত থাকবে।

আউলিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান নজু জানান, শ্রী শ্রী রশিক রায় জিউ মন্দিরের জমির দখল নিয়ে হিন্দুধর্মের দুই মতানুসারীদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমির মালিকা দাবি করে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে ২০০৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রশিক রায় জিউ মন্দিরে দুর্গাপূজা নিয়ে ইসকনপন্থী ও সাধারণ হিন্দুদের মধ্যে সংঘর্ষ ও হামলা হয়।

তিনি জানান, ইসকন ভক্তদের হামলায় শ্রী ফুলবাবু (৩৫) নামে এক ভ্যান শ্রমিক নিহত হন। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উপজেলা প্রশাসন মন্দির সিলগালা করে কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব নেয়। এ থেকে ওই মন্দিরে পূজার সময় সংঘর্ষ বা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার আশঙ্কায় স্থানীয় প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে। এবারও একই পদক্ষেপ নেয় প্রশাসন।

তবে এ ঘটনার অবসানের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। আউলিয়াপুর ইউপি সাবেক ইউপি সদস্য ও মাদারগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দারা বলেন, কতদিন গ্রামবাসীরা ভয়ভীতি ও অশান্তির মধ্যে বিশেষ করে দুর্গোৎসবে পূজা অর্চনা করবে। ঘটনার পরিসমাপ্তি হওয়া দরকার।  

ঠাকুরগাঁও থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম বলেন, স্থায়ীভাবে সমাধানের জন্য ইউএনও উদ্যোগ নিয়েছেন। পূজা শেষ হলে দুই পক্ষকে নিয়ে আলোচনায় বসা হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন