নোয়াখালীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
jugantor
নোয়াখালীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২২ অক্টোবর ২০২০, ০০:৫৩:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের আয়েশা আক্তার প্রিয়া (২০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেছেন তার বাবা।

আয়েশার বাবা জানান, আয়েশার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন বুধবার দুপুরে তাকে বেদম মারধর করে। খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা তাকে মুর্মূষু অবসস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নিহতের বাবা চরকিং ইউনিয়নের শুল্লুকিয়া গ্রামের মো.আলমগীর হোসেন বলেন, তার মেয়েকে দীর্ঘদিন থেকে স্বামী ইদ্রিস (২৮) নির্যাতন করে আসছে। বুধবার সকালে তার মেয়েকে শারীরিক নির্যাতন করে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। পরে অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়লে তার মুখে বিষ ঢেলে দেয়। এক পর্যায়ে মেয়ের অবস্থা খারাপ হয়ে পড়লে প্রতিবেশীরা তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার কিছু সময় পর আয়েশার মৃত্যু হয়। মৃত্যু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, মেয়ের স্বামী ইদ্রিসের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে অন্য একটি মেয়ের পরকীয়া চলছে। এনিয়ে পরিবারে প্রতিদিন ঝগড়া বিবাদ চলে আসছে।

অভিযুক্ত স্বামী ইদ্রীস হাতিয়া পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে চরকৈলাশ গ্রামের কামাল উদ্দিনের ছেলে।

হাতিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাঞ্চন কান্তি দাস জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ পেলে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২২ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের আয়েশা আক্তার প্রিয়া  (২০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেছেন তার বাবা। 

আয়েশার বাবা জানান,  আয়েশার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন বুধবার দুপুরে তাকে বেদম মারধর করে। খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা তাকে  মুর্মূষু অবসস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নিহতের বাবা চরকিং ইউনিয়নের শুল্লুকিয়া গ্রামের মো.আলমগীর হোসেন বলেন, তার মেয়েকে দীর্ঘদিন থেকে স্বামী ইদ্রিস (২৮) নির্যাতন করে আসছে। বুধবার সকালে তার মেয়েকে শারীরিক নির্যাতন করে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। পরে অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়লে তার মুখে বিষ ঢেলে দেয়। এক পর্যায়ে মেয়ের অবস্থা খারাপ হয়ে পড়লে প্রতিবেশীরা তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার কিছু সময় পর আয়েশার মৃত্যু হয়। মৃত্যু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়। 

তিনি আরও বলেন, মেয়ের স্বামী ইদ্রিসের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে অন্য একটি মেয়ের পরকীয়া চলছে। এনিয়ে পরিবারে প্রতিদিন ঝগড়া বিবাদ চলে আসছে।

অভিযুক্ত স্বামী ইদ্রীস হাতিয়া পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে চরকৈলাশ গ্রামের কামাল উদ্দিনের ছেলে।

হাতিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাঞ্চন কান্তি দাস জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে।  অভিযোগ পেলে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন