পোশাক কর্মীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর মুক্তিপণ দাবি
jugantor
পোশাক কর্মীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর মুক্তিপণ দাবি

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

২২ অক্টোবর ২০২০, ২০:৪৭:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

কারখানা থেকে বাসায় ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক পোশাককর্মী। এরপর তার পরিবারের কাছে ফোন করে মুক্তিপণ দাবি করে ধর্ষকরা। বুধবার রাতে গাজীপুর মহানগরীর কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার বিচার দাবিতে বৃহস্পতিবার সকালে ওই নারী পোশাক শ্রমিকের সহকর্মীরা কাশিমপুর থানার সামনে বিক্ষোভ করেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আমিনুল ইসলাম (২৮), শাহাদাত হোসেন (৩৫) ও বায়েজিদ হোসেনকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত আমিনুল ইসলাম ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার গোবরকুড়া এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে। শাহাদাত হোসেন গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে, বায়েজিদ হোসেন একই এলাকার আব্দুল আলীমের ছেলে।

কারখানার শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আরব ফ্যাশন লিমিটেড নামে পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক বুধবার রাতে ছুটির পর বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় পথে ৫-৬ জন যুবক তাকে রাস্তা থেকে তুলে নেয়।

পরে স্থানীয় স্কয়ার গেট এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে ফোনে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ শাহাদাত হোসেন, বায়েজিদ হোসেন, আমিনুল ইসলামকে আটক করে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কোনাবাড়ি জোনের সহকারী কমিশনার থোয়াই অংপ্রু মারমা জানান, এ ঘটনায় জড়িত ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ভুক্তভোগী নারীকে পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কাশিমপুর থানার ওসি কুদরত-ই-খোদা জানান, ঘটনাটি পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সব আসামি গ্রেফতার করা হবে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

পোশাক কর্মীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর মুক্তিপণ দাবি

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
২২ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কারখানা থেকে বাসায় ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক পোশাককর্মী। এরপর তার পরিবারের কাছে ফোন করে মুক্তিপণ দাবি করে ধর্ষকরা। বুধবার রাতে গাজীপুর মহানগরীর কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনার বিচার দাবিতে বৃহস্পতিবার সকালে ওই নারী পোশাক শ্রমিকের সহকর্মীরা কাশিমপুর থানার সামনে বিক্ষোভ করেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত আমিনুল ইসলাম (২৮), শাহাদাত হোসেন (৩৫) ও বায়েজিদ হোসেনকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ। 

আটককৃত আমিনুল ইসলাম ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার গোবরকুড়া এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে। শাহাদাত হোসেন গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে, বায়েজিদ হোসেন একই এলাকার আব্দুল আলীমের ছেলে।

কারখানার শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আরব ফ্যাশন লিমিটেড নামে পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক বুধবার রাতে ছুটির পর বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় পথে ৫-৬ জন যুবক তাকে রাস্তা থেকে তুলে নেয়। 

পরে স্থানীয় স্কয়ার গেট এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে ফোনে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ শাহাদাত হোসেন, বায়েজিদ হোসেন, আমিনুল ইসলামকে আটক করে। 

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কোনাবাড়ি জোনের সহকারী কমিশনার থোয়াই অংপ্রু মারমা জানান, এ ঘটনায় জড়িত ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ভুক্তভোগী নারীকে পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

কাশিমপুর থানার ওসি কুদরত-ই-খোদা জানান, ঘটনাটি পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সব আসামি গ্রেফতার করা হবে। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন