অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বসতবাড়িতে তাণ্ডব
jugantor
অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বসতবাড়িতে তাণ্ডব

  উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

২২ অক্টোবর ২০২০, ২২:৪৪:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক অসহায় কিশোরীকে অপহরণের চেষ্টা চালিয়েছে কতিপয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসী৷ এতে ব্যর্থ হয়ে তারা কিশোরীর বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়ে রক্ষিত মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

শুধু তাই নয়, এ সময় বসতবাড়ির আঙিনার গাছ-গাছালি কেটে সাবাড় করারও অভিযোগ উঠেছে। বুধবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে।

বুধবার রাতে উখিয়া উপজেলার ক্রাইম জোন নামে খ্যাত পালংখালী ৭নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, ওই এলাকার এক তরুণীকে (১৬) অপহরণের উদ্দেশে বাড়িতে দা, কিরিচ, অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় একই এলাকার আব্দুল মোনাফের ছেলে আব্দুল খালেক (৩৪) ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। এ সময় বাধা দিতে গেলে কিশোরীর মাকে (৪০) কুপিয়ে গুরুতর আহত করে ওই সন্ত্রাসীরা।

কিশোরীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, পরিবারের অভাব-অনটনের কারণে নিজে পড়ালেখা করতে পারিনি। তবে মেয়েকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করব- এমন স্বপ্ন নিয়ে পড়ালেখা করিয়ে আসছিলাম। কিন্তু সন্ত্রাসী খালেক আমার মেয়েকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্ত্যক্ত করে। এ কারণে ৮ম শ্রেণি থেকে পড়ালেখা বন্ধ করে দিই। এরপর থেকে বারবার বাড়িতে এসে হুমকি-ধমকি দিত। তারা প্রভাবশালী বিধায় আমরা ভয়ে আতঙ্কে মুখ খুলতে সাহস পায়নি।

বুধবার রাতে খালেকসহ ১০-১২ জন সন্ত্রাসী বাড়িতে এসে মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা করলে পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে মেয়েকে রক্ষা করেন৷ তখন তাকে ধরে নিয়ে যেতে না পেরে আমার স্ত্রী আয়েশা বেগমকে কুপিয়ে আহত করে৷ পাশাপাশি বাড়ির ভেতরে রক্ষিত বিভিন্ন মালামাল তছনছ করে খালেকের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা৷

শুধু তাই নয়, সন্ত্রাসীরা বাড়ির আঙিনার কলাগাছ, আমগাছসহ বিভিন্ন গাছগাছালি কেটে সাবাড় করে দেয়। তবে ঘটনার সময় আমি বাড়িতে ছিলাম না।

কিশোরীর মা বলেন, আমার স্বামী বাড়িতে না থাকার সুযোগে সন্ত্রাসী খালেকের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমার মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা করে। আমি মেয়েকে একটি কক্ষে রেখে তাদের সঙ্গে তর্কাতর্কি করলে তারা আমাকে ধারালো কিরিচ দিয়ে আঘাত করে। এ সময় আমার ডান হাতের কবজি কেটে যায়। তখন আমি চিৎকার করলে লোকজন এগিয়ে আসে, পরে সন্ত্রাসীরা চলে যায়।

কিশোরী জানায়, দীর্ঘদিন ধরে আমাকে বিভিন্ন অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছিল খালেক। আমি তার এসব প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমাকে অপহরণ করার জন্য বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়েছে। এলাকার লোকজন আমাকে রক্ষা করেছে। আমি এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

সে অভিযোগ করে বলে, এ ঘটনায় আমি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি কিন্তু এখনও পর্যন্ত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি থানা পুলিশ।

উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, অভিযোগ আমার হাতে আসেনি, হয়তো থানায় অন্য কারও কাছে দিয়েছে। বিষয়টি আমি দেখছি।

অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বসতবাড়িতে তাণ্ডব

 উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
২২ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক অসহায় কিশোরীকে অপহরণের চেষ্টা চালিয়েছে কতিপয় প্রভাবশালী সন্ত্রাসী৷ এতে ব্যর্থ হয়ে তারা কিশোরীর বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়ে রক্ষিত মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। 

শুধু তাই নয়, এ সময় বসতবাড়ির আঙিনার গাছ-গাছালি কেটে সাবাড় করারও অভিযোগ উঠেছে। বুধবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। 

বুধবার রাতে উখিয়া উপজেলার ক্রাইম জোন নামে খ্যাত পালংখালী ৭নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। 

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, ওই এলাকার এক তরুণীকে (১৬) অপহরণের উদ্দেশে বাড়িতে দা, কিরিচ, অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় একই এলাকার আব্দুল মোনাফের ছেলে আব্দুল খালেক (৩৪) ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। এ সময় বাধা দিতে গেলে কিশোরীর মাকে (৪০) কুপিয়ে গুরুতর আহত করে ওই সন্ত্রাসীরা।

কিশোরীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, পরিবারের অভাব-অনটনের কারণে নিজে পড়ালেখা করতে পারিনি। তবে মেয়েকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করব- এমন স্বপ্ন নিয়ে পড়ালেখা করিয়ে আসছিলাম। কিন্তু  সন্ত্রাসী খালেক আমার মেয়েকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্ত্যক্ত করে। এ কারণে ৮ম শ্রেণি থেকে পড়ালেখা বন্ধ করে দিই। এরপর থেকে বারবার বাড়িতে এসে হুমকি-ধমকি দিত। তারা প্রভাবশালী বিধায় আমরা ভয়ে আতঙ্কে মুখ খুলতে সাহস পায়নি। 

বুধবার রাতে খালেকসহ ১০-১২ জন সন্ত্রাসী বাড়িতে এসে মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা করলে পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে মেয়েকে রক্ষা করেন৷ তখন তাকে ধরে নিয়ে যেতে না পেরে আমার স্ত্রী আয়েশা বেগমকে কুপিয়ে আহত করে৷ পাশাপাশি বাড়ির ভেতরে রক্ষিত বিভিন্ন মালামাল তছনছ করে খালেকের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা৷ 

শুধু তাই নয়, সন্ত্রাসীরা বাড়ির আঙিনার কলাগাছ, আমগাছসহ বিভিন্ন গাছগাছালি কেটে সাবাড় করে দেয়। তবে ঘটনার সময়  আমি বাড়িতে ছিলাম না। 

কিশোরীর মা বলেন, আমার স্বামী বাড়িতে না থাকার সুযোগে সন্ত্রাসী খালেকের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমার মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা করে। আমি মেয়েকে একটি কক্ষে রেখে তাদের সঙ্গে তর্কাতর্কি করলে তারা আমাকে ধারালো কিরিচ দিয়ে আঘাত করে। এ সময় আমার ডান হাতের কবজি কেটে যায়। তখন আমি চিৎকার করলে লোকজন এগিয়ে আসে, পরে সন্ত্রাসীরা চলে যায়। 

কিশোরী জানায়, দীর্ঘদিন ধরে আমাকে বিভিন্ন অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছিল খালেক। আমি তার এসব প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমাকে অপহরণ করার জন্য বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়েছে। এলাকার লোকজন আমাকে রক্ষা করেছে। আমি এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। 

সে অভিযোগ করে বলে, এ ঘটনায় আমি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি কিন্তু এখনও পর্যন্ত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি থানা পুলিশ। 

উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, অভিযোগ আমার হাতে আসেনি, হয়তো থানায় অন্য কারও কাছে দিয়েছে। বিষয়টি আমি দেখছি। 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন