চোরাবালিতে আটকে আহত কালকিনির কলেজছাত্রের মৃত্যু
jugantor
চোরাবালিতে আটকে আহত কালকিনির কলেজছাত্রের মৃত্যু

  কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

২৩ অক্টোবর ২০২০, ২০:১৬:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মো. নাহিদ মুন্সি (২১)

সমুদ্র সৈকতের চোরাবালিতে আটকে এবং পানির ঢেউয়ের আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার মো. নাহিদ মুন্সি (২১) নামে এক মেধাবী কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। নিহত নাহিদ মুন্সি উপজেলার সাহেবরামপুর এলাকার দক্ষিণ সাহেবরামপুর গ্রামের মো. বাদুল মুন্সির ছোট ছেলে ও কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজের অর্নাসের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। শুক্রবার দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও নিহতের চাচাতো ভাই এআর আহম্মেদ জানান, কলেজছাত্র নাহিদ মুন্সি সম্প্রতি তার বন্ধুদের সাথে সমুদ্র সৈকত পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটায় আনন্দ ভ্রমণে যান। সেখানে তিনি বন্ধুদের সাথে সমুদ্রে গোসল করতে গিয়ে চোরাবালিতে হঠাৎ করে পা আটকে এবং পানির ঢেউয়ে প্রচণ্ড আঘাতপ্রাপ্ত হন। এ বিষয়টি দেখে বন্ধুরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন। পরে তাকে ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি চিকিৎধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মো. নাছির উদ্দিন মৃধা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে বসে চোরাবালিতে আটকে এবং পানির ঢেউয়ের আঘাতে নাহিদের ঘাড়ের রগ ছিঁড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। পরে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

চোরাবালিতে আটকে আহত কালকিনির কলেজছাত্রের মৃত্যু

 কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৮:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মো. নাহিদ মুন্সি (২১)
মো. নাহিদ মুন্সি (২১)

সমুদ্র সৈকতের চোরাবালিতে আটকে এবং পানির ঢেউয়ের আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার মো. নাহিদ মুন্সি (২১) নামে এক মেধাবী কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। নিহত নাহিদ মুন্সি উপজেলার সাহেবরামপুর এলাকার দক্ষিণ সাহেবরামপুর গ্রামের মো. বাদুল মুন্সির ছোট ছেলে ও কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজের অর্নাসের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। শুক্রবার দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও নিহতের চাচাতো ভাই এআর আহম্মেদ জানান, কলেজছাত্র নাহিদ মুন্সি সম্প্রতি তার বন্ধুদের সাথে সমুদ্র সৈকত পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটায় আনন্দ ভ্রমণে যান। সেখানে তিনি বন্ধুদের সাথে সমুদ্রে গোসল করতে গিয়ে চোরাবালিতে হঠাৎ করে পা আটকে এবং পানির ঢেউয়ে প্রচণ্ড আঘাতপ্রাপ্ত হন। এ বিষয়টি দেখে বন্ধুরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন। পরে তাকে ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি চিকিৎধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মো. নাছির উদ্দিন মৃধা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে বসে চোরাবালিতে আটকে এবং পানির ঢেউয়ের আঘাতে নাহিদের ঘাড়ের রগ ছিঁড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। পরে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন