রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল
jugantor
রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল

  কুমিল্লা ব্যুরো  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ২০:০৪:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গৃহহীন সেই রিকশাচালকের আবদার রাখলেন সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। রোববার রাতে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ডালকরপাড়া গ্রামের আলোচিত রিকশাচালক আলমাছ মিয়ার দাবি অনুযায়ী তার ঘর উদ্বোধন করেন এমপি রাজী। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান, ওসি জহিরুল আনোয়ার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা গোলাম মাওলা, পৌর মেয়র প্রার্থী ভিপি বাবুল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, রিকশাচালক আলমাছ মিয়া এলাকার দরিদ্র হিসেবে টিআর কর্মসূচির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অবদান দুর্যোগসহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় একটি পাকা ঘর বরাদ্দ পান।

২ লাখ ৯৮ হাজার টাকা ব্যয়ে ঘরটি নির্মাণের পর এমপি রাজী ফখরুল এসে ঘরটি উদ্বোধন না করলে রিকশাচালক আলমাস ঘরে বসবাস করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। ঘর নির্মাণ শেষ হলেও বেশ কিছুদিন যাবত রিকশাচালক নির্মিত নতুন ঘরে প্রবেশ না করে পাশের গাছতলায় পলিথিন টানিয়ে বসবাস করতে থাকেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়।

খবর পেয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা শনিবার রাতে ওই রিকশাচালকের বাড়িতে যান এবং বিষয়টি সংসদ সদস্যকে অবগত করেন। ওই রিকশাচালকের আবদার পূরণের জন্য এমপি রাজী ফখরুল রোববার রাতেই তার বাড়িতে উপস্থিত হন। দাবি অনুযায়ী উদ্বোধন করে তাকে ঘরে তুলে দেন। এ সময় এমপির উপস্থিতি দেখে এলাকার লোকজনসহ রিকশাচালক আলমাছ বেশ খুশি হন। এমপি রাজী ফখরুল রিকশাচালকের দাবি পূরণ করে মহানুভবতার পরিচয় দেন বলে জানান এলাকার লোকজন।

রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল

 কুমিল্লা ব্যুরো 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল
রিকশাচালকের আবদার রাখলেন এমপি ফখরুল

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গৃহহীন সেই রিকশাচালকের আবদার রাখলেন সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। রোববার রাতে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ডালকরপাড়া গ্রামের আলোচিত রিকশাচালক আলমাছ মিয়ার দাবি অনুযায়ী তার ঘর উদ্বোধন করেন এমপি রাজী। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান, ওসি জহিরুল আনোয়ার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা গোলাম মাওলা, পৌর মেয়র প্রার্থী ভিপি বাবুল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

জানা যায়, রিকশাচালক আলমাছ মিয়া এলাকার দরিদ্র হিসেবে টিআর কর্মসূচির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অবদান দুর্যোগসহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় একটি পাকা ঘর বরাদ্দ পান।

 

২ লাখ ৯৮ হাজার টাকা ব্যয়ে ঘরটি নির্মাণের পর এমপি রাজী ফখরুল এসে ঘরটি উদ্বোধন না করলে রিকশাচালক আলমাস ঘরে বসবাস করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। ঘর নির্মাণ শেষ হলেও বেশ কিছুদিন যাবত রিকশাচালক নির্মিত নতুন ঘরে প্রবেশ না করে পাশের গাছতলায় পলিথিন টানিয়ে বসবাস করতে থাকেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়।

 

খবর পেয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা শনিবার রাতে ওই রিকশাচালকের বাড়িতে যান এবং বিষয়টি সংসদ সদস্যকে অবগত করেন। ওই রিকশাচালকের আবদার পূরণের জন্য এমপি রাজী ফখরুল রোববার রাতেই তার বাড়িতে উপস্থিত হন। দাবি অনুযায়ী উদ্বোধন করে তাকে ঘরে তুলে দেন। এ সময় এমপির উপস্থিতি দেখে এলাকার লোকজনসহ রিকশাচালক আলমাছ বেশ খুশি হন। এমপি রাজী ফখরুল রিকশাচালকের দাবি পূরণ করে মহানুভবতার পরিচয় দেন বলে জানান এলাকার লোকজন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন