২২ ডাইং কারখানা বন্ধ করে দিল পরিবেশ অধিদফতর
jugantor
২২ ডাইং কারখানা বন্ধ করে দিল পরিবেশ অধিদফতর

  কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৭ অক্টোবর ২০২০, ২০:৩০:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

পানি শোধনাগার বা ইটিপি না থাকায় উচ্চ আদালতের নির্দেশে কেরানীগঞ্জের ২২টি ওয়াশিং ডাইং কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার পরিবেশ অধিদফতর অভিযান চালিয়ে আগানগর ও কালিগঞ্জ এলাকায় অবস্থিত এসব কারখানা বন্ধ করে দেয়। বন্ধ করার পাশাপাশি কারখানাগুলোর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতায় অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট) রুবিনা ফেরদৌসী, ঢাকা জেলা উপপরিচালক সাহেদা বেগম, সহকারী পরিচালক হায়াৎ মাহমুদ রাকিব।

উপপরিচালক সাহেদা বেগম বলেন, বুড়িগঙ্গার পানিদূষণ রোধে উচ্চ আদালতের নির্দেশ রয়েছে দুই তীরে ইটিপি ছাড়া স্থাপিত ওয়াশিং ডাইং কারখানা বন্ধ করার। কেরানীগঞ্জে নদীর তীর সংলগ্ন এলাকায় আমরা ৫২টি কারখানার সন্ধান পেয়েছি। যদিও প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। যেগুলোতে ইটিপি নাই। কয়েকমাস পূর্বে এসব কারখানা আমরা বন্ধ করে দিয়েছিলাম।

কারখানার মালিকরা উচ্চ আদালত থেকে দুই মাসের জন্য স্টে অর্ডার এনেছিলেন। আদালত দুই মাসের মধ্যে অন্যত্র কারখানাগুলো স্থানান্তর ও ইটিপি স্থাপনের জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন।

কিন্তু দুই মাস অতিক্রান্ত হলেও কারখানার মালিকরা সেই নির্দেশ মানেননি। এজন্য আজকে ৫২ কারখানার মধ্যে ২২টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে।

২২ ডাইং কারখানা বন্ধ করে দিল পরিবেশ অধিদফতর

 কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পানি শোধনাগার বা ইটিপি না থাকায় উচ্চ আদালতের নির্দেশে কেরানীগঞ্জের ২২টি ওয়াশিং ডাইং কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার পরিবেশ অধিদফতর অভিযান চালিয়ে আগানগর ও কালিগঞ্জ এলাকায় অবস্থিত এসব কারখানা বন্ধ করে দেয়। বন্ধ করার পাশাপাশি কারখানাগুলোর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতায় অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট) রুবিনা ফেরদৌসী, ঢাকা জেলা উপপরিচালক সাহেদা বেগম, সহকারী পরিচালক হায়াৎ মাহমুদ রাকিব।

উপপরিচালক সাহেদা বেগম বলেন, বুড়িগঙ্গার পানিদূষণ রোধে উচ্চ আদালতের নির্দেশ রয়েছে দুই তীরে ইটিপি ছাড়া স্থাপিত ওয়াশিং ডাইং কারখানা বন্ধ করার। কেরানীগঞ্জে নদীর তীর সংলগ্ন এলাকায় আমরা ৫২টি কারখানার সন্ধান পেয়েছি। যদিও প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। যেগুলোতে ইটিপি নাই। কয়েকমাস পূর্বে এসব কারখানা আমরা বন্ধ করে দিয়েছিলাম।

কারখানার মালিকরা উচ্চ আদালত থেকে দুই মাসের জন্য স্টে অর্ডার এনেছিলেন। আদালত দুই মাসের মধ্যে অন্যত্র কারখানাগুলো স্থানান্তর ও ইটিপি স্থাপনের জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন।

কিন্তু দুই মাস অতিক্রান্ত হলেও কারখানার মালিকরা সেই নির্দেশ মানেননি। এজন্য আজকে ৫২ কারখানার মধ্যে ২২টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন