প্রতিপক্ষকে গুলি করে কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান 
jugantor
প্রতিপক্ষকে গুলি করে কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান 

  পাবনা প্রতিনিধি  

২৭ অক্টোবর ২০২০, ২২:৫২:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউপি চেয়ারম্যান

পাবনায় প্রতিপক্ষের উপর প্রকাশ্যে গুলিবর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার বিকালে পাবনার আমলি আদালত- ৬ এর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিলন হোসেন এ আদেশ দেন। বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাড. বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন। শাহীন চৌধুরী সুজানগর উপজেলার সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান।

মামলার বাদি হাশমত খলিফা জানান, ২০১৮ সালের ২৮ নভেম্বর তারিখে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী দলবল নিয়ে তার উপর হামলা চালান। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীর নির্দেশে তার ভাতিজা রবিন চৌধুরী তাকে হত্যার উদ্দেশে প্রকাশ্যে গুলি চালান।

গুলিটি তার পায়ে লাগায় তিনি গুরুতর আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান। এ ঘটনায় তিনি আমিনপুর থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। পরে তার আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলাটি পিবিআইতে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) স্থানান্তর করা হয়।

পিবিআই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফজলে এলাহী জানান, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন মো. আসাদুজ্জামান। পিবিআই তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পায়। সে মোতাবেক আদালতে সম্প্রতি চার্জশিট দাখিল করা হয়।

এদিকে মঙ্গলবার মামলার শুনানির দিন ধার্য ছিল। এতে মামলার ১৩ আসামি আদালতে হাজির হন। আদালত মামলার ১১ আসামিকে জামিন দেন আর সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

প্রতিপক্ষকে গুলি করে কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান 

 পাবনা প্রতিনিধি 
২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউপি চেয়ারম্যান
ইউপি চেয়ারম্যান

পাবনায় প্রতিপক্ষের উপর প্রকাশ্যে গুলিবর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার বিকালে পাবনার আমলি আদালত- ৬ এর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিলন হোসেন এ আদেশ দেন। বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাড. বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন। শাহীন চৌধুরী সুজানগর উপজেলার সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান। 

মামলার বাদি হাশমত খলিফা জানান, ২০১৮ সালের ২৮ নভেম্বর তারিখে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী দলবল নিয়ে তার উপর হামলা চালান। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরীর নির্দেশে তার ভাতিজা রবিন চৌধুরী তাকে হত্যার উদ্দেশে প্রকাশ্যে গুলি চালান। 

গুলিটি তার পায়ে লাগায় তিনি গুরুতর আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান। এ ঘটনায় তিনি আমিনপুর থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। পরে তার আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলাটি পিবিআইতে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) স্থানান্তর করা হয়। 

পিবিআই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফজলে এলাহী জানান, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন মো. আসাদুজ্জামান। পিবিআই তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পায়। সে মোতাবেক আদালতে সম্প্রতি চার্জশিট দাখিল করা হয়।

এদিকে মঙ্গলবার মামলার শুনানির দিন ধার্য ছিল। এতে মামলার ১৩ আসামি আদালতে হাজির হন। আদালত মামলার ১১ আসামিকে জামিন দেন আর সাগরকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন চৌধুরী ও তার ভাতিজা রবিন চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।  

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন