মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার
jugantor
 মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

  মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি    

২৮ অক্টোবর ২০২০, ২০:০২:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

 মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

নেত্রকোনার মদনে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করায় ধর্ষক রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিককে (২৪) গ্রেফতার করেছে মদন থানা পুলিশ। বুধবার উপজেলার বৃবরিকান্দি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা মো. ফজলু মিয়া বুধবার সকালে ধর্ষক রফিকুল ইসলাম, চাচাতো ভাই রাসেল মিয়া ও তার বোনজামাই সোহাগ মিয়াসহ তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বৃবরিকান্দি গ্রামের জনৈক ব্যক্তির মেয়ের সঙ্গে ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার কাঁঠালডাঙ্গা গ্রামের বিশুর উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম মোবাইলে যোগাযোগ করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে মেয়েটিকে গত ২৩ অক্টোবর তাদের বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। পরে ২৪ অক্টোবর মেয়েটি কৌশলে বাড়িতে ফিরে এসে পরিবারের লোকজনকে জানায়।

২৮ অক্টোবর ভিকটিমের বাবা ফজলু মিয়া ধর্ষকসহ তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এদিন সকালেই মূল আসামি রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মমতাজ উদ্দিন জানান,এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় বুধবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার মূল আসামি রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিককে গ্রেফতার করে বুধবার কোর্টহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

 মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   
২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
 মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার
 মদনে  বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

নেত্রকোনার মদনে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করায় ধর্ষক রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিককে (২৪) গ্রেফতার করেছে মদন থানা পুলিশ। বুধবার উপজেলার বৃবরিকান্দি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।  এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা মো. ফজলু মিয়া বুধবার সকালে ধর্ষক রফিকুল ইসলাম, চাচাতো ভাই রাসেল মিয়া ও তার বোনজামাই সোহাগ মিয়াসহ তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বৃবরিকান্দি গ্রামের জনৈক ব্যক্তির মেয়ের সঙ্গে ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার কাঁঠালডাঙ্গা গ্রামের বিশুর উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম মোবাইলে যোগাযোগ করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে মেয়েটিকে গত ২৩ অক্টোবর তাদের বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। পরে ২৪ অক্টোবর মেয়েটি কৌশলে বাড়িতে ফিরে এসে পরিবারের লোকজনকে জানায়।

২৮ অক্টোবর ভিকটিমের বাবা ফজলু মিয়া ধর্ষকসহ তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে  মামলা দায়ের করেন। এদিন সকালেই মূল আসামি রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মমতাজ উদ্দিন জানান,এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা তিনজনকে আসামি করে মদন থানায় বুধবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার মূল আসামি রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিককে গ্রেফতার করে বুধবার কোর্টহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন