বশেমুরবিপ্রবিতে তৃতীয় দিনের অনশনে ভর্তিচ্ছুরা, অসুস্থ ৪
jugantor
বশেমুরবিপ্রবিতে তৃতীয় দিনের অনশনে ভর্তিচ্ছুরা, অসুস্থ ৪

  গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৬:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বশেমুরবিপ্রবিতে তৃতীয় দিনের অনশনে ভর্তিচ্ছুরা, অসুস্থ ৪

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তিপরীক্ষায় অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের একাংশ টানা তৃতীয় দিনের মতো ভর্তির দাবিতে আমরণ অনশন করছেন।

অনশনরত শিক্ষার্থীরা জানান, অনশন কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় মো. মিলন আলী এবং দীপক চন্দ্র দাস নামে দুই অনশনরত শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন। বর্তমানে তারা গোপালগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
এ ছাড়া মো. মাহফুজুল হক ও আল মামুন নামে আরও দুই শিক্ষার্থী বর্তমানে অসুস্থ বোধ করছেন।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে মোট ছয়জন অনশন কর্মসূচি পালন করছেন। এদের মধ্যে চারজন গত ২৭ অক্টোবর থেকে এবং দুজন বুধবার থেকে অনশন কর্মসূচিতে যোগদান করেছেন।

এদিকে বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য ড. একিউএম মাহবুব জানিয়েছেন, অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে নতুন কোনো শিক্ষার্থীকে ভর্তি নেয়া হবে কিনা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আগামী ১ নভেম্বর ভর্তি পরীক্ষার কোর কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে।

নতুন কোনো শিক্ষার্থীকে ভর্তি নেয়া হনে কিনা এ বিষয়ে ওই মিটিংয়েই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে অনশনরত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা জানান, ভর্তির নিশ্চয়তা না পাওয়া পর্যন্ত তারা অনশন অব্যাহত রাখবেন।

এইচ ইউনিটের অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা শিক্ষার্থী হুমায়ুনুল ইসলাম বলেন, আমাদের জানানো হয়েছে যে রোববার এ বিষয়ে মিটিং অনুষ্ঠিত হবে; কিন্তু এমন কোনো নিশ্চয়তা দেয়া হয়নি যে আমাদের ভর্তি করা হবে। এ কারণে আমরা অনশন অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

প্রসঙ্গত বশেমুরবিপ্রবিতে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ৪৪৪টি আসান শূন্য রয়েছে। এসব শূন্য আসনের বিপরীতে অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তির দাবিতে গত ২৭ অক্টোবর থেকে এবিইএফ এবং এইচ ইউনিটের আট শিক্ষার্থী অনশন শুরু করেন।

বশেমুরবিপ্রবিতে তৃতীয় দিনের অনশনে ভর্তিচ্ছুরা, অসুস্থ ৪

 গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বশেমুরবিপ্রবিতে তৃতীয় দিনের অনশনে ভর্তিচ্ছুরা, অসুস্থ ৪
ছবি: যুগান্তর

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তিপরীক্ষায় অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের একাংশ টানা তৃতীয় দিনের মতো ভর্তির দাবিতে আমরণ অনশন করছেন।

অনশনরত শিক্ষার্থীরা জানান, অনশন কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় মো. মিলন আলী এবং দীপক চন্দ্র দাস নামে দুই অনশনরত শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন। বর্তমানে তারা গোপালগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
এ ছাড়া মো. মাহফুজুল হক ও আল মামুন নামে আরও দুই শিক্ষার্থী বর্তমানে অসুস্থ বোধ করছেন।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে মোট ছয়জন অনশন কর্মসূচি পালন করছেন। এদের মধ্যে চারজন গত ২৭ অক্টোবর থেকে এবং দুজন বুধবার থেকে অনশন কর্মসূচিতে যোগদান করেছেন।

এদিকে বশেমুরবিপ্রবির উপাচার্য ড. একিউএম মাহবুব জানিয়েছেন, অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে নতুন কোনো শিক্ষার্থীকে ভর্তি নেয়া হবে কিনা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আগামী ১ নভেম্বর ভর্তি পরীক্ষার কোর কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে।

নতুন কোনো শিক্ষার্থীকে ভর্তি নেয়া হনে কিনা এ বিষয়ে ওই মিটিংয়েই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে অনশনরত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা জানান, ভর্তির নিশ্চয়তা না পাওয়া পর্যন্ত তারা অনশন অব্যাহত রাখবেন।

এইচ ইউনিটের অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা শিক্ষার্থী হুমায়ুনুল ইসলাম বলেন, আমাদের জানানো হয়েছে যে রোববার এ বিষয়ে মিটিং অনুষ্ঠিত হবে; কিন্তু এমন কোনো নিশ্চয়তা দেয়া হয়নি যে আমাদের ভর্তি করা হবে। এ কারণে আমরা অনশন অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

প্রসঙ্গত বশেমুরবিপ্রবিতে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ৪৪৪টি আসান শূন্য রয়েছে। এসব শূন্য আসনের বিপরীতে অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তির দাবিতে গত ২৭ অক্টোবর থেকে এবিইএফ এবং এইচ ইউনিটের আট শিক্ষার্থী অনশন শুরু করেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন