কান্নাকাটি করায় শিশুকে গলাটিপে মারল মা
jugantor
কান্নাকাটি করায় শিশুকে গলাটিপে মারল মা

  ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

২৯ অক্টোবর ২০২০, ২০:২৬:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় কান্নাকাটি করায় নিজের শিশুসন্তানকে গলাটিপে মেরে ফেলেছে মা মাহমুদা। এ ঘটনায় মাহমুদাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার উপজেলার কাঁঠাল ইউনিয়নের বালিয়ারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ওই গ্রামের রাজিবুলের শিশুছেলে মাজহার (৬) বুধবার সকালে তার সৎমা কাকলীর কাছে তাল খেতে চায়। তার সৎমা তাল না দিলে শিশুছেলে তার বাবাকে ঘটনাটি বললে বাবা ছেলেকে তাল খেতে দেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই সতীনের বাকবিতণ্ডা হয়।

ওই দিনই বাড়ির পাশে ফেরিওয়ালা এলে শিশু মাজহার বেলুন দেখে কিনে দেয়ার জন্য তার আপন মা মাহমুদার কাছে বায়না করে। বেলুন কিনে না দেয়ায় শিশুছেলে কান্নাকাটি শুরু করে। এ সময় মাহমুদা শিশুছেলেকে গলাটিপে ধরে। কিছুক্ষণ পর ছেলেটির মৃত্যু হয়।

এ ঘটনাটি জানাজানি হলে ত্রিশাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় জড়িত মা মাহমুদাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজিবুল ১২ বছর আগে মাহমুদাকে বিয়ে করলে তার ঘরে দুটি সন্তান হয়। স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া লেগে মাহমুদা তার বাবার বাড়ি চলে যান। পরে রাজিব দ্বিতীয় বিয়ে করেন কাকলীকে। প্রথম স্ত্রী মাহমুদা কয়েক মাস পর রাজিবের ঘরেই ফিরে আসেন। একসঙ্গে দুই স্ত্রী নিয়েই চলছিল সংসার জীবন। এতে সংসারে শুরু হয় অশান্তি। এদিকে কাকলী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

ত্রিশাল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির মা মাহমুদাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিশুর লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ত্রিশাল থানায় নিয়মিত হত্যা মামলা করা হয়েছে।

কান্নাকাটি করায় শিশুকে গলাটিপে মারল মা

 ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  
২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় কান্নাকাটি করায় নিজের শিশুসন্তানকে গলাটিপে মেরে ফেলেছে মা মাহমুদা। এ ঘটনায় মাহমুদাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার উপজেলার কাঁঠাল ইউনিয়নের বালিয়ারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ওই গ্রামের রাজিবুলের শিশুছেলে মাজহার (৬) বুধবার সকালে তার সৎমা কাকলীর কাছে তাল খেতে চায়। তার সৎমা তাল না দিলে শিশুছেলে তার বাবাকে ঘটনাটি বললে বাবা ছেলেকে তাল খেতে দেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই সতীনের বাকবিতণ্ডা হয়।

ওই দিনই বাড়ির পাশে ফেরিওয়ালা এলে শিশু মাজহার বেলুন দেখে কিনে দেয়ার জন্য তার আপন মা মাহমুদার কাছে বায়না করে। বেলুন কিনে না দেয়ায় শিশুছেলে কান্নাকাটি শুরু করে। এ সময় মাহমুদা শিশুছেলেকে গলাটিপে ধরে। কিছুক্ষণ পর ছেলেটির মৃত্যু হয়।

এ ঘটনাটি জানাজানি হলে ত্রিশাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় জড়িত মা মাহমুদাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজিবুল ১২ বছর আগে মাহমুদাকে বিয়ে করলে তার ঘরে দুটি সন্তান হয়। স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া লেগে মাহমুদা তার বাবার বাড়ি চলে যান। পরে রাজিব দ্বিতীয় বিয়ে করেন কাকলীকে। প্রথম স্ত্রী মাহমুদা কয়েক মাস পর রাজিবের ঘরেই ফিরে আসেন। একসঙ্গে দুই স্ত্রী নিয়েই চলছিল সংসার জীবন। এতে সংসারে শুরু হয় অশান্তি। এদিকে কাকলী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

ত্রিশাল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির মা মাহমুদাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিশুর লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ত্রিশাল থানায় নিয়মিত হত্যা মামলা করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন