ফুলবাড়ীতে পুত্রের কুড়ালের কোপে পিতা হাসপাতালে
jugantor
ফুলবাড়ীতে পুত্রের কুড়ালের কোপে পিতা হাসপাতালে

  ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ২০:৩৬:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ছেলের কুড়ালের কোপে স্কুলশিক্ষক পিতা গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি এখন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার মধ্য তালুক শিমুলবাড়ী গ্রামে। আহত স্কুলশিক্ষক ওই গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪৫)। তিনি পূর্ব শিমুলবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাড়ির উঠানের একটি নারকেল গাছ কাটার জন্য শ্রমিক ডাকেন রফিকুল ইসলাম। শ্রমিকরা গাছ কাটতে শুরু করলে ছেলে রোকন (২৫) নিষেধ করেন।

কিন্তু নিষেধ উপেক্ষা করে শ্রমিকদের গাছ কাটতে বললে ক্ষিপ্ত হয়ে কুড়াল দিয়ে পিতার ঘাড়ে কোপ দেন পাষণ্ড রোকন। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় রফিকুলকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে নেন। অবস্থার অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোছা. শামসুন্নাহার জানান, তার আঘাত গুরুতর। তাই তাকে দ্রুত প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ফুলবাড়ীতে পুত্রের কুড়ালের কোপে পিতা হাসপাতালে

 ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কুড়িগ্রাম
কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ছেলের কুড়ালের কোপে স্কুলশিক্ষক পিতা গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি এখন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার মধ্য তালুক শিমুলবাড়ী গ্রামে। আহত স্কুলশিক্ষক ওই গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪৫)। তিনি পূর্ব শিমুলবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাড়ির উঠানের একটি নারকেল গাছ কাটার জন্য শ্রমিক ডাকেন রফিকুল ইসলাম। শ্রমিকরা গাছ কাটতে শুরু করলে ছেলে রোকন (২৫) নিষেধ করেন।

কিন্তু নিষেধ উপেক্ষা করে শ্রমিকদের গাছ কাটতে বললে ক্ষিপ্ত হয়ে কুড়াল দিয়ে পিতার ঘাড়ে কোপ দেন পাষণ্ড রোকন। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় রফিকুলকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে নেন। অবস্থার অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোছা. শামসুন্নাহার জানান, তার আঘাত গুরুতর। তাই তাকে দ্রুত প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন