পানির স্রোতে কালভার্ট ভেঙে ভোগান্তিতে গ্রামবাসী  
jugantor
পানির স্রোতে কালভার্ট ভেঙে ভোগান্তিতে গ্রামবাসী  

  সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি   

৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫:০৩:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

গত বন্যায় গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নে পানির স্রোতে ভেঙে গেছে কালভার্টসহ সংযোগ সড়ক। এতে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ওই পথে চলাচলকারী গ্রামবাসীদের।

বৃহস্পতিবার সকালে জামালপুর ইউনিয়নের খোর্দ্দ রসুলপুর হাজির জাঙ্গাল-কলপাড়া বটতলা পর্যন্ত কাঁচা সড়কের ভাঙা স্থানে দেখা গেছে মানুষদের ঝুঁকি নিয়ে চলাচলের চিত্র।

জানা যায়, গত মাসে এই এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে ভয়াবহ বন্যা। এ সময় স্থানীয় খলশেগাড়ি বিলের পানি হাজির জাঙ্গালের কালভার্ট দিয়ে প্রবাহিত হয়ে চোঙ্গার বিলে প্রবেশ করেছে। এতে কালভার্টটির ভেতর দিয়ে পানি প্রবাহে বাধাগ্রস্ত হয়। ফলে পানির তীব্র স্রোতে ওই কালভার্ট ও দু’পাশের সংযোগ সড়ক ভেঙে পড়ে। এ কারণে বিচ্ছিন্ন হয়েছে সহস্রাধিক মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে উত্তর ফদিরপুর, ইসবপুর, খোর্দ্দ রসুলপুর ও বুজরুক রসুলপুর গ্রামসহ আরও বেশ কিছু গ্রামের সহস্রাধিক মানুষের চলাচল বন্ধ রয়েছে। এসব মানুষেরা বিভিন্ন হাট-বাজার ও আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে বিকল্প রাস্তা ঘুরে যাতায়াত করছে। আবার অনেকে হেঁটে কিংবা বাইসাইকেল ঘাড়ে নিয়ে ঝুঁকিতে ভাঙা স্থান দিয়ে পারাপার হচ্ছে। ফলে সেখানে হরহামেশা ঘটছে ছোটখাটো দুর্ঘটনা। হাজির জাঙ্গালের ওই ভাঙা কালভার্ট ও সড়কটি মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্টদের জানিয়ে কোনো কাজ হয়নি বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।

খোর্দ্দ রসুলপুর আশরাফুল উলুম হাফেজিয়া মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, হেঁটে চলা মানুষদের চলাচলের সুবিধার্থে ভাঙা স্থানে বাঁশের সাঁকো দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি সেটিও নড়বড়ে হয়ে গেছে।

জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান মণ্ডল জানান, পরিষদের আওতাধীন যেসব রাস্তা, ব্রিজ-কালভার্ট বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, সেগুলো মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

পানির স্রোতে কালভার্ট ভেঙে ভোগান্তিতে গ্রামবাসী  

 সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি  
৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৩:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গত বন্যায় গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নে পানির স্রোতে ভেঙে গেছে কালভার্টসহ সংযোগ সড়ক। এতে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ওই পথে চলাচলকারী গ্রামবাসীদের। 

বৃহস্পতিবার সকালে জামালপুর ইউনিয়নের খোর্দ্দ রসুলপুর হাজির জাঙ্গাল-কলপাড়া বটতলা পর্যন্ত কাঁচা সড়কের ভাঙা স্থানে দেখা গেছে মানুষদের ঝুঁকি নিয়ে চলাচলের চিত্র।

জানা যায়, গত মাসে এই এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে ভয়াবহ বন্যা। এ সময় স্থানীয় খলশেগাড়ি বিলের পানি হাজির জাঙ্গালের কালভার্ট দিয়ে প্রবাহিত হয়ে চোঙ্গার বিলে প্রবেশ করেছে। এতে কালভার্টটির ভেতর দিয়ে পানি প্রবাহে বাধাগ্রস্ত হয়। ফলে পানির তীব্র স্রোতে ওই কালভার্ট ও দু’পাশের সংযোগ সড়ক ভেঙে পড়ে। এ কারণে বিচ্ছিন্ন হয়েছে সহস্রাধিক মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে উত্তর ফদিরপুর, ইসবপুর, খোর্দ্দ রসুলপুর ও বুজরুক রসুলপুর গ্রামসহ আরও বেশ কিছু গ্রামের সহস্রাধিক মানুষের চলাচল বন্ধ রয়েছে। এসব মানুষেরা বিভিন্ন হাট-বাজার ও আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে বিকল্প রাস্তা ঘুরে যাতায়াত করছে। আবার অনেকে হেঁটে কিংবা বাইসাইকেল ঘাড়ে নিয়ে ঝুঁকিতে ভাঙা স্থান দিয়ে পারাপার হচ্ছে। ফলে সেখানে হরহামেশা ঘটছে ছোটখাটো দুর্ঘটনা। হাজির জাঙ্গালের ওই ভাঙা কালভার্ট ও সড়কটি মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্টদের জানিয়ে কোনো কাজ হয়নি বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।

খোর্দ্দ রসুলপুর আশরাফুল উলুম হাফেজিয়া মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, হেঁটে চলা মানুষদের চলাচলের সুবিধার্থে ভাঙা স্থানে বাঁশের সাঁকো দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি সেটিও নড়বড়ে হয়ে গেছে।

জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান মণ্ডল জানান, পরিষদের আওতাধীন যেসব রাস্তা, ব্রিজ-কালভার্ট বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, সেগুলো মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন