৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে সহস্রধারা ঝর্নার লেক থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার
jugantor
৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে সহস্রধারা ঝর্নার লেক থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

  সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

৩০ অক্টোবর ২০২০, ২১:১৮:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে মো. মাহফুজ বিন ইকবাল (২৬) নামে এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। ৯৯৯ নম্বরে বন্ধুরা ফোন করলে শুক্রবার বিকালে সহস্রধারা ঝর্নার লেকের পানিতে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল তল্লাশি চালিয়ে নিখোঁজ পর্যটকের লাশটি উদ্ধার করেন।

মো. মাহফুজ বিন ইকবাল রাজধানী ঢাকার মালিবাগ রামপুরা এলাকার মো. জাফর ইকবালের পুত্র।

জানা যায়, ঢাকা থেকে ছয় বন্ধু বেড়ানোর উদ্দেশ্যে সীতাকুণ্ডের বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের ছোট দারোগারহাট সহস্রধারা ঝর্নায় আসেন। প্রায় দুই ঘণ্টা ঝর্নায় বেড়ানোর পর ৬ বন্ধু লেকের পানিতে সাঁতার কাটার জন্য নামেন। কিছুক্ষণ সাঁতার কাটার পর ৫ বন্ধু লেকের কিনারে ফিরে আসলেও এক বন্ধু পানিতে ডুবে যায়।

এরপর অপর বন্ধুরা বিষয়টি ৯৯৯ লাইনে কল করে জানান। দুপুর ৩টার দিকে সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে যায়। দীর্ঘ আড়াই ঘণ্টা চেষ্টার পর নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রেহান উদ্দিন রেহান বলেন, ঝর্নায় বেড়াতে এসে লেকের পানিতে সাঁতার কাটতে গিয়ে এক পর্যটক পানিতে ডুবে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল সন্ধ্যার দিকে লাশটি উদ্ধার করেন।

সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শরিফুল ইসলাম বলেন, আমরা ৯৯৯ লাইনের ফোন কল পেয়ে তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করি। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে নিখোঁজ পর্যটকের লাশটি উদ্ধার করা হয়।

৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে সহস্রধারা ঝর্নার লেক থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

 সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৯:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে মো. মাহফুজ বিন ইকবাল (২৬) নামে এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। ৯৯৯ নম্বরে বন্ধুরা ফোন করলে শুক্রবার বিকালে সহস্রধারা ঝর্নার লেকের পানিতে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল তল্লাশি চালিয়ে নিখোঁজ পর্যটকের লাশটি উদ্ধার করেন।

মো. মাহফুজ বিন ইকবাল রাজধানী ঢাকার মালিবাগ রামপুরা এলাকার মো. জাফর ইকবালের পুত্র।

জানা যায়, ঢাকা থেকে ছয় বন্ধু বেড়ানোর উদ্দেশ্যে সীতাকুণ্ডের বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের ছোট দারোগারহাট সহস্রধারা ঝর্নায় আসেন। প্রায় দুই ঘণ্টা ঝর্নায় বেড়ানোর পর ৬ বন্ধু লেকের পানিতে সাঁতার কাটার জন্য নামেন। কিছুক্ষণ সাঁতার কাটার পর ৫ বন্ধু লেকের কিনারে ফিরে আসলেও এক বন্ধু পানিতে ডুবে যায়।

এরপর অপর বন্ধুরা বিষয়টি ৯৯৯ লাইনে কল করে জানান। দুপুর ৩টার দিকে সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে যায়। দীর্ঘ আড়াই ঘণ্টা চেষ্টার পর নিখোঁজ পর্যটকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রেহান উদ্দিন রেহান বলেন, ঝর্নায় বেড়াতে এসে লেকের পানিতে সাঁতার কাটতে গিয়ে এক পর্যটক পানিতে ডুবে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল সন্ধ্যার দিকে লাশটি উদ্ধার করেন।

সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শরিফুল ইসলাম বলেন, আমরা ৯৯৯ লাইনের ফোন কল পেয়ে তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করি। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে নিখোঁজ পর্যটকের লাশটি উদ্ধার করা হয়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন