বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধষর্ণচেষ্টা
jugantor
বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধষর্ণচেষ্টা

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৯:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধষর্ণচেষ্টা

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় রিকশা থামিয়ে বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তিন যুবকের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের বড়চারিগাঁও গ্রামের চৌরাস্তার উত্তরে ঠাকুরবাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপার ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে রাত ১১টার দিকে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা জানান, বড়চারিগাঁও গ্রামের তিন বখাটে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। পুলিশ তদন্ত ও আসামিদের গ্রেফতার করার স্বার্থে এখনই আসামিদের নাম প্রকাশ না করতে বলেছে।

সেনবাগ থানার ওসি আবদুল বাতেন মৃধা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভুক্তভোগী কিশোরী ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে বাবার সঙ্গে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ৮নং বীজবাগ ইউনিয়নে নানার বাড়িতে যাচ্ছিল।

পথে তিন বখাটে কিশোরীর বাবাকে মারধর করে তাকে রিকশা থেকে তুলে নিয়ে ঠাকুরবাড়ির ভিতরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। পরে ওই কিশোরী ও তার বাবার চিৎকারে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে। এসময় বখাটেরা পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা তার মেয়েকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধষর্ণচেষ্টা

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধষর্ণচেষ্টা
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় রিকশা থামিয়ে বাবাকে মারধরের পর কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তিন যুবকের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের বড়চারিগাঁও গ্রামের চৌরাস্তার উত্তরে ঠাকুরবাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপার ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে রাত ১১টার দিকে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা জানান, বড়চারিগাঁও গ্রামের তিন বখাটে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। পুলিশ তদন্ত ও আসামিদের গ্রেফতার করার স্বার্থে এখনই আসামিদের নাম প্রকাশ না করতে বলেছে।

সেনবাগ থানার ওসি আবদুল বাতেন মৃধা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভুক্তভোগী কিশোরী ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে বাবার সঙ্গে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ৮নং বীজবাগ ইউনিয়নে নানার বাড়িতে যাচ্ছিল।

পথে তিন বখাটে কিশোরীর বাবাকে মারধর করে তাকে রিকশা থেকে তুলে নিয়ে ঠাকুরবাড়ির ভিতরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। পরে ওই কিশোরী ও তার বাবার চিৎকারে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে। এসময় বখাটেরা পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা তার মেয়েকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন