মুকসুদপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কলেজছাত্র নিহত
jugantor
মুকসুদপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কলেজছাত্র নিহত

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৫:২৩:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

সুমন খান

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে সুমন খান (২৭) নামের এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার সকালে উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ঢাকপাড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

সুমন খান ওই গ্রামের আলী আহমেদ খানের ছেলে ও ফরিদপুর পলিটেকনিক্যাল কলেজের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শেষ বর্ষের ছাত্র।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বৃহস্পতিবার বিকালে আলী আহমেদ খানের লোকজন বিল্লাল খানের পক্ষের রুহুল শেখকে মারধর করেন। এ নিয়ে শুক্রবার সকালে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।

এসময় দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে ৮ জন আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় কলেজছাত্র সুমন খান ও তার বাবা আলী আহমেদ খানসহ চারজনকে মুকসুদপুর ও পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শুক্রবার বিকালে সুমনের অবস্থা অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

মুকসুদপুর থানার ওসি মো. আবু বকর মিয়া যুগান্তরকে জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।

মুকসুদপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কলেজছাত্র নিহত

 টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সুমন খান
ছবি-যুগান্তর

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে সুমন খান (২৭) নামের এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন। 

শুক্রবার সকালে উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ঢাকপাড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। 

সুমন খান ওই গ্রামের আলী আহমেদ খানের ছেলে ও ফরিদপুর পলিটেকনিক্যাল কলেজের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শেষ বর্ষের ছাত্র।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বৃহস্পতিবার বিকালে আলী আহমেদ খানের লোকজন বিল্লাল খানের পক্ষের রুহুল শেখকে মারধর করেন। এ নিয়ে শুক্রবার সকালে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।  

এসময় দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে ৮ জন আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় কলেজছাত্র সুমন খান ও তার বাবা আলী আহমেদ খানসহ চারজনকে মুকসুদপুর ও পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

শুক্রবার বিকালে সুমনের অবস্থা অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। 

মুকসুদপুর থানার ওসি মো. আবু বকর মিয়া যুগান্তরকে জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন