বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: রিমান্ড শেষে ইস্রাফিলের স্বীকারোক্তি
jugantor
বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: রিমান্ড শেষে ইস্রাফিলের স্বীকারোক্তি

  নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি  

০১ নভেম্বর ২০২০, ১৩:২৭:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: রিমান্ড শেষে ইস্রাফিলের স্বীকারোক্তি

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলার ৪নং আসামি ইস্রাফিল মিয়া আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালত ১-এর বিচারক শোয়েব উদ্দিন খানের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন ইস্রাফিল।

রাতে নোয়াখালী পিবিআই পরিদর্শক সিরাজুল মোস্তফা যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার তাকে তিন দিনের রিমান্ডে আনলে শেষ দিন স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় সে। জবানবন্দি রেকর্ড করার পর ম্যাজিস্ট্রেট তাকে কারাগারে পাঠান।

এর আগে পিবিআই বেলা ২টার দিকে আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ইস্রাফিল মিয়াকে আইন মোতাবেক ৩ ঘণ্টার সময় দেয়। এর পর বিকাল ৫টায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) আলতাফ হোসেন জানান, বেগমগঞ্জ উপজেলায় গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলায় আসামি ইস্রাফিলকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সোয়েব উদ্দিন খান ১৬৪ ধারায় কালামের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীর স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে বাবার বাড়ি একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে এসে তাদের ঘরে ঢুকেন।

বিষয়টি দেখে ফেলে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার।

রাত ১০টার দিকে দেলোয়ার তার লোকজন নিয়ে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে পরপুরুষের সঙ্গে অনৈতিক কাজ ও তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর শুরু করে।

একপর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে।

৪ অক্টোবর দুপুরে ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে জেলায় তথা দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: রিমান্ড শেষে ইস্রাফিলের স্বীকারোক্তি

 নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি 
০১ নভেম্বর ২০২০, ০১:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বেগমগঞ্জে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: রিমান্ড শেষে ইস্রাফিলের স্বীকারোক্তি
ছবি: যুগান্তর

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলার ৪নং আসামি ইস্রাফিল মিয়া আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালত ১-এর বিচারক শোয়েব উদ্দিন খানের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন ইস্রাফিল।

রাতে নোয়াখালী পিবিআই পরিদর্শক সিরাজুল মোস্তফা যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার তাকে তিন দিনের রিমান্ডে আনলে শেষ দিন স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় সে। জবানবন্দি রেকর্ড করার পর ম্যাজিস্ট্রেট তাকে কারাগারে পাঠান।

এর আগে পিবিআই বেলা ২টার দিকে আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ইস্রাফিল মিয়াকে আইন মোতাবেক ৩ ঘণ্টার সময় দেয়। এর পর বিকাল ৫টায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) আলতাফ হোসেন জানান, বেগমগঞ্জ উপজেলায় গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলায় আসামি ইস্রাফিলকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সোয়েব উদ্দিন খান ১৬৪ ধারায় কালামের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীর স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে বাবার বাড়ি একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে এসে তাদের ঘরে ঢুকেন।

বিষয়টি দেখে ফেলে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার।

রাত ১০টার দিকে দেলোয়ার তার লোকজন নিয়ে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে পরপুরুষের সঙ্গে অনৈতিক কাজ ও তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর শুরু করে।

একপর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে।

৪ অক্টোবর দুপুরে ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে জেলায় তথা দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : নোয়াখালীতে নারীকে নির্যাতন করে ভিডিও

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন