এক ঘণ্টায় জামাই-শ্বশুরের মৃত্যু, পরে আরেকজনের!
jugantor
এক ঘণ্টায় জামাই-শ্বশুরের মৃত্যু, পরে আরেকজনের!

  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি  

০২ নভেম্বর ২০২০, ২২:৪৫:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউপির বলঞ্চা গ্রামে এক ঘণ্টার ব্যবধানে জামাই-শ্বশুরের মৃত্যু হয়েছে। তাদের একই কবরস্থানে দাফনের পর আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। এতে স্থানীয়রা হতবিহবল হয়ে পড়েছেন।

উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য আইনুল হক জানান, রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বলঞ্চা গ্রামের স্কুলশিক্ষক হামিদুল হক (৪৯) ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ খবর শুনে রাত সাড়ে ১০টায় তার শ্বশুর জসিম উদ্দিন (৮৫) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নিজবাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন।

সোমবার দুপুরে এলাকার মহারাজা পাঁচপীর কবরস্থানে জামাই-শ্বশুরের দাফনের চার ঘণ্টা পর ওই গ্রামের সহিদুল হক (৫২) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়। একই গ্রামের তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানান স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য হামিদুর রহমান।

তিনি বলেন, ওষুধ মনে করে তরল বিষপান করে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন দুই সন্তানের বাবা সহিদুর। সুস্থ করতে তাকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

রানীশংকৈল থানার ওসি এসএম জাহিদ ইকবাল তিনজনের মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হামিদুল হক এলাকার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। তিনি লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। আর কৃষক সহিদুরের লাশ দেখার জন্য হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

এক ঘণ্টায় জামাই-শ্বশুরের মৃত্যু, পরে আরেকজনের!

 ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি 
০২ নভেম্বর ২০২০, ১০:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউপির বলঞ্চা গ্রামে এক ঘণ্টার ব্যবধানে জামাই-শ্বশুরের মৃত্যু হয়েছে। তাদের একই কবরস্থানে দাফনের পর আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। এতে স্থানীয়রা হতবিহবল হয়ে পড়েছেন। 

উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য আইনুল হক জানান, রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বলঞ্চা গ্রামের স্কুলশিক্ষক হামিদুল হক (৪৯) ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ খবর শুনে রাত সাড়ে ১০টায় তার শ্বশুর জসিম উদ্দিন (৮৫) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নিজবাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন।

সোমবার দুপুরে এলাকার মহারাজা পাঁচপীর কবরস্থানে জামাই-শ্বশুরের দাফনের চার ঘণ্টা পর ওই গ্রামের সহিদুল হক (৫২) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়। একই গ্রামের তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানান স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য হামিদুর রহমান।

তিনি বলেন, ওষুধ মনে করে তরল বিষপান করে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন দুই সন্তানের বাবা সহিদুর। সুস্থ করতে তাকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

রানীশংকৈল থানার ওসি এসএম জাহিদ ইকবাল তিনজনের মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হামিদুল হক এলাকার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। তিনি লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। আর কৃষক সহিদুরের লাশ দেখার জন্য হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন