স্বামীর সঙ্গে মিল করে দেয়ার নামে গৃহবধূকে আটকে রেখে ধর্ষণ কবিরাজের
jugantor
স্বামীর সঙ্গে মিল করে দেয়ার নামে গৃহবধূকে আটকে রেখে ধর্ষণ কবিরাজের

  নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

০৯ নভেম্বর ২০২০, ১৯:০২:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের নান্দাইলে স্বামীর সঙ্গে মিল করিয়ে দেয়ার নামে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে এক কবিরাজকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে নান্দাইল মডেল থানা পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আটককৃত কবিরাজের নাম মুক্তল হোসেন (৫৫)। সে উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউপির দত্তপুর গ্রামের মৃত আ. কাদির মুন্সির পুত্র।

থানার অভিযোগে জানা যায়, বাগেরহাটের মোল্লারহাট উপজেলার মান্দারতলী গ্রামের ৩৩ বছর বয়সী ওই নারীর সঙ্গে তার স্বামীর পারিবারিক বিরোধ চলছে। ওই নারী কোনো মাধ্যমে জানতে পারেন মুক্তল কবিরাজ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মিল-মহব্বত তৈরি করে দেয়। ওই নারী ফোনে যোগাযোগ করলে কবিরাজ জানায়- এ সম্পর্ক তৈরি করে দিতে হলে তার বাড়িতে আসতে হবে এবং অবস্থান করতে হবে।

কবিরাজের কথামতো ওই নারী গত ২ নভেম্বর থেকে কানারামপুর বাজারে কবিরাজের বাসায় অবস্থান করছিলেন। দুই দিন কবিরাজির নামে তাকে ধর্ষণ করা হয়। রোববার দুপুরে ওই নারী কৌশলে পালিয়ে এসে নান্দাইল মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে রাতেই কবিরাজ মুক্তলকে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার ওসি মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, আসামিকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। ওই নারীকে পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্বামীর সঙ্গে মিল করে দেয়ার নামে গৃহবধূকে আটকে রেখে ধর্ষণ কবিরাজের

 নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
০৯ নভেম্বর ২০২০, ০৭:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের নান্দাইলে স্বামীর সঙ্গে মিল করিয়ে দেয়ার নামে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে এক কবিরাজকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে নান্দাইল মডেল থানা পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আটককৃত কবিরাজের নাম মুক্তল হোসেন (৫৫)। সে উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউপির দত্তপুর গ্রামের মৃত আ. কাদির মুন্সির পুত্র।

থানার অভিযোগে জানা যায়, বাগেরহাটের মোল্লারহাট উপজেলার মান্দারতলী গ্রামের ৩৩ বছর বয়সী ওই নারীর সঙ্গে তার স্বামীর পারিবারিক বিরোধ চলছে। ওই নারী কোনো মাধ্যমে জানতে পারেন মুক্তল কবিরাজ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মিল-মহব্বত তৈরি করে দেয়। ওই নারী ফোনে যোগাযোগ করলে কবিরাজ জানায়- এ সম্পর্ক তৈরি করে দিতে হলে তার বাড়িতে আসতে হবে এবং অবস্থান করতে হবে।

কবিরাজের কথামতো ওই নারী গত ২ নভেম্বর থেকে কানারামপুর বাজারে কবিরাজের বাসায় অবস্থান করছিলেন। দুই দিন কবিরাজির নামে তাকে ধর্ষণ করা হয়। রোববার দুপুরে ওই নারী কৌশলে পালিয়ে এসে নান্দাইল মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে রাতেই কবিরাজ মুক্তলকে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার ওসি মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, আসামিকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। ওই নারীকে পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন