ফেসবুকের বলি সাতক্ষীরার কলেজছাত্রী নন্দিতা
jugantor
ফেসবুকের বলি সাতক্ষীরার কলেজছাত্রী নন্দিতা

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  

০৯ নভেম্বর ২০২০, ২১:৩০:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

মাত্র কয়েক দিন বাদেই বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা তার। তার আগেই ফেসবুকের বলি হলেন সাতক্ষীরার এক কলেজছাত্রী। তার ফেসবুক আইডি কে বা কারা হ্যাক করে অবান্তর ভাষায় লেখালেখি করছিল। সেই সঙ্গে তারা পাল্টা জবাবও পাচ্ছিল।

সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুর গ্রামের বিকাশ চৌধুরীর মেয়ে নন্দিতা চৌধুরী (২০)। সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক শ্রেণির ছাত্রী ছিল। সোমবার সকালে তার ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়নায় জড়িয়ে ফাঁসিতে পেঁচানো লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ নিয়ে যাওয়া হয় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে।

তার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, নন্দিতার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছিল। এ অবস্থায় ওই আইডি থেকে অশোভন ও কটূক্তিমূলক লেখালেখি হচ্ছিল। পাল্টা জবাবও এর আসছিল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এমন একটি ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়ে নন্দিতা। রোববার দুপুরে সে এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি জিডি করে।

এদিকে জিডি করে আসার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর বিকাল ৫টার দিকে দুটি মেয়ে ও দুটি ছেলে তাদের বাড়িতে এসে নন্দিতাকে শাসায়। তাকে বলা হয় ‘তুমি অপরাধ স্বীকার করো, না হলে তোমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

জবাবে নন্দিতা জানায়, ‘আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে গেছে। কে বা কারা এতে অবান্তর ভাষায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও পরিবারকে আক্রমণ করে কথা বলছে সেটা আমার জানা নেই। আর এ কারণে আমি এ ঝগড়া থেকে মুক্ত থাকার লক্ষ্যে সাতক্ষীরা থানায় একটি জিডি করেছি। এই জিডিতে আমি বিস্তারিত উল্লেখ করে পুলিশের সহায়তা চেয়েছি।’

এরপরও নন্দিতাকে ওই চারজন কঠোর ভাষায় শাসিয়ে চলে যায়। পরিবারের লোকজন এ খবর জেনে হতাশ হয়ে পড়েন।

এদিকে সোমবার সকালে ঘরে তার লাশ ঝুলতে দেখে পরিবারের সদস্যরা ছুটে যান। পরে পুলিশে খবর দেয়া হয়।

নন্দিতার বাবা বিকাশ চৌধুরী জানান, আগামী ১৪ নভেম্বর তার মেয়ের বিয়ে হওয়ার কথা। এরই মধ্যে সব আয়োজনও সম্পন্ন হয়েছে। তার আগেই তার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কারা যেন কটূক্তি করেছিল। এর ফলে রাগে-অভিমানে ক্ষুব্ধ হয়ে তার মেয়ে আত্মহননের পথ বেছে নেয়।

যোগাযোগ করা হলে সাতক্ষীরা সদর থানার ডিউটি অফিসার এসআই ওসমান গনি জানান, নন্দিতা চৌধুরী ৮ নভেম্বর একটি জিডি করেন। যার নম্বর ৪৩৩। এতে তিনি তার আইডি হ্যাক হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশের সহায়তা কামনা করেন। বিষয়টি তদন্তাধীন থাকা অবস্থায় নন্দিতা আত্মহত্যা করেছেন বলে তিনি জানতে পেরেছেন।

ফেসবুকের বলি সাতক্ষীরার কলেজছাত্রী নন্দিতা

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি 
০৯ নভেম্বর ২০২০, ০৯:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাত্র কয়েক দিন বাদেই বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা তার। তার আগেই ফেসবুকের বলি হলেন সাতক্ষীরার এক কলেজছাত্রী। তার ফেসবুক আইডি কে বা কারা হ্যাক করে অবান্তর ভাষায় লেখালেখি করছিল। সেই সঙ্গে তারা পাল্টা জবাবও পাচ্ছিল।

সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুর গ্রামের বিকাশ চৌধুরীর মেয়ে নন্দিতা চৌধুরী (২০)। সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক শ্রেণির ছাত্রী ছিল। সোমবার সকালে তার ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়নায় জড়িয়ে ফাঁসিতে পেঁচানো লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ নিয়ে যাওয়া হয় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে।

তার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, নন্দিতার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছিল। এ অবস্থায় ওই আইডি থেকে অশোভন ও কটূক্তিমূলক লেখালেখি হচ্ছিল। পাল্টা জবাবও এর আসছিল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এমন একটি ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়ে নন্দিতা। রোববার দুপুরে সে এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি জিডি করে।

এদিকে জিডি করে আসার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর বিকাল ৫টার দিকে দুটি মেয়ে ও দুটি ছেলে তাদের বাড়িতে এসে নন্দিতাকে শাসায়। তাকে বলা হয় ‘তুমি অপরাধ স্বীকার করো, না হলে তোমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

জবাবে নন্দিতা জানায়, ‘আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে গেছে। কে বা কারা এতে অবান্তর ভাষায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও পরিবারকে আক্রমণ করে কথা বলছে সেটা আমার জানা নেই। আর এ কারণে আমি এ ঝগড়া থেকে মুক্ত থাকার লক্ষ্যে সাতক্ষীরা থানায় একটি জিডি করেছি। এই জিডিতে আমি বিস্তারিত উল্লেখ করে পুলিশের সহায়তা চেয়েছি।’

এরপরও নন্দিতাকে ওই চারজন কঠোর ভাষায় শাসিয়ে চলে যায়। পরিবারের লোকজন এ খবর জেনে হতাশ হয়ে পড়েন।
 
এদিকে সোমবার সকালে ঘরে তার লাশ ঝুলতে দেখে পরিবারের সদস্যরা ছুটে যান। পরে পুলিশে খবর দেয়া হয়।

নন্দিতার বাবা বিকাশ চৌধুরী জানান, আগামী ১৪ নভেম্বর তার মেয়ের বিয়ে হওয়ার কথা। এরই মধ্যে সব আয়োজনও সম্পন্ন হয়েছে। তার আগেই তার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কারা যেন কটূক্তি করেছিল। এর ফলে রাগে-অভিমানে ক্ষুব্ধ হয়ে তার মেয়ে আত্মহননের পথ বেছে নেয়।

যোগাযোগ করা হলে সাতক্ষীরা সদর থানার ডিউটি অফিসার এসআই  ওসমান গনি জানান, নন্দিতা চৌধুরী ৮ নভেম্বর একটি জিডি করেন। যার নম্বর ৪৩৩। এতে তিনি তার আইডি হ্যাক হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশের সহায়তা কামনা করেন। বিষয়টি তদন্তাধীন থাকা অবস্থায় নন্দিতা আত্মহত্যা করেছেন বলে তিনি জানতে পেরেছেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন