ভারতে ঢুকে পড়া ২ র‌্যাব সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ
jugantor
ভারতে ঢুকে পড়া ২ র‌্যাব সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

১১ নভেম্বর ২০২০, ১৭:০৬:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুর সীমান্তে মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে গিয়ে মাদক চোরাকারবারিদের সঙ্গে র‌্যাব সদস্যদের সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার একপর্যায়ের একজন কর্মকর্তাসহ র‌্যাবের দুই সদস্য সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে ঢুকে পড়লে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তাদের আটক করে নিয়ে যায়।

মঙ্গলবার গভীর রাতে আহত র‌্যাবের দুই সদস্যকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

ওই দুই র‌্যাব সদস্য হচ্ছেন- র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানি (সিপিসি)-১ এর উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিক।

স্থানীয়রা জানান, সীমান্তে ব্যাপকভাবে মাদক চোরাচালান বেড়ে যাওয়ায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আমতলী স্বরস্বতীপুর সীমান্তের সমজিয়া মণ্ডলপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ে সাদা পোশাকে মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে যান র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানি-১ এর পাঁচ সদস্য। সীমান্ত এলাকায় র‌্যাব সদস্যরা দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে একটি ভাগে তিনজন এবং আরেকটি ভাগে দুইজন র‌্যাব সদস্য ভিন্নভাবে অভিযান শুরু করেন।

কিন্তু না জেনে সীমান্ত পিলার ৩০৭/১ দিয়ে ভারতের অভ্যন্তরে ঢুকে যান র‌্যাব সদস্যরা। সেখানে ৩ জন র‌্যাব সদস্যের দলটি ভারতীয় এক চোরাকারবারিকে আটক করে। এ সময় ওই চোরাকারবারি চেঁচামেচি শুরু করলে আরও ৮-১০ জন চোরাকারবারি এসে র‌্যাব সদস্যদের ওপর হামলা চালায়। এতে র‌্যাব সদস্যদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়।

এ সময় সেখানে র‌্যাবের তিন সদস্য আত্মরক্ষার্থে এক রাউন্ড গুলি চালিয়ে কৌশলে পালিয়ে আসে। গুলির শব্দ শুনে অপরপ্রান্তে থাকা দুই র‌্যাব সদস্য তাদের উদ্ধারে এগিয়ে যায়। এ সময় ওই ২ র‌্যাব সদস্যের ওপরও হামলা চালায় মাদক চোরাকারবারিরা।

খবর পেয়ে ভারতের সমজিয়া ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিককে চোরাকারবারিদের কাছ থেকে উদ্ধার করে আহতাবস্থায় ক্যাম্পে আটকে রাখে। রাত পৌনে ১২টায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আটককৃত দুই র‌্যাব সদস্যকে বিজিবির কাছে ফেরত দেয় বিএসএফ।

র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবদুল্লাহ আল মামুন বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রাতে বিএসএফের কাছ থেকে আহতাবস্থায় উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিককে উদ্ধার করা হয়েছে এবং বর্তমানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

এ বিষয়ে র‌্যাব সদর দফতরের আইন ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লা জানান, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর পাঁচ সদস্যের একটি টিম মঙ্গলবার আমতলী সীমান্ত এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটলে র‌্যাবের দুই সদস্য ভারতের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যায় এবং পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাদের ফেরত দেয়।

এ ব্যাপারে বিজিবি-২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরীফউল্লাহ আবেদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভারত সীমান্তবেষ্টিত দিনাজপুর জেলার সীমান্ত দিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বেপরোয়াভাবে বেড়েছে মাদক চোরাচালান। অস্বাভাবিক লাভজনক হওয়ায় এবং জেলার প্রায় সর্বত্রই অবাধেই মাদক বেচাকেনায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সীমান্তের মাদক চোরাকারবারিরা। সীমান্ত দিয়ে অবাধেই ভারত থেকে বাংলাদেশে আসছে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য।

ভারতে ঢুকে পড়া ২ র‌্যাব সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
১১ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুর সীমান্তে মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে গিয়ে মাদক চোরাকারবারিদের সঙ্গে র‌্যাব সদস্যদের সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার একপর্যায়ের একজন কর্মকর্তাসহ র‌্যাবের দুই সদস্য সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে ঢুকে পড়লে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তাদের আটক করে নিয়ে যায়।

মঙ্গলবার গভীর রাতে আহত র‌্যাবের দুই সদস্যকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

ওই দুই র‌্যাব সদস্য হচ্ছেন- র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানি (সিপিসি)-১ এর উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিক।

স্থানীয়রা জানান, সীমান্তে ব্যাপকভাবে মাদক চোরাচালান বেড়ে যাওয়ায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আমতলী স্বরস্বতীপুর সীমান্তের সমজিয়া মণ্ডলপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ে সাদা পোশাকে মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে যান র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানি-১ এর পাঁচ সদস্য। সীমান্ত এলাকায় র‌্যাব সদস্যরা দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে একটি ভাগে তিনজন এবং আরেকটি ভাগে দুইজন র‌্যাব সদস্য ভিন্নভাবে অভিযান শুরু করেন।

কিন্তু না জেনে সীমান্ত পিলার ৩০৭/১ দিয়ে ভারতের অভ্যন্তরে ঢুকে যান র‌্যাব সদস্যরা। সেখানে ৩ জন র‌্যাব সদস্যের দলটি ভারতীয় এক চোরাকারবারিকে আটক করে। এ সময় ওই চোরাকারবারি চেঁচামেচি শুরু করলে আরও ৮-১০ জন চোরাকারবারি এসে র‌্যাব সদস্যদের ওপর হামলা চালায়। এতে র‌্যাব সদস্যদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়।

এ সময় সেখানে র‌্যাবের তিন সদস্য আত্মরক্ষার্থে এক রাউন্ড গুলি চালিয়ে কৌশলে পালিয়ে আসে। গুলির শব্দ শুনে অপরপ্রান্তে থাকা দুই র‌্যাব সদস্য তাদের উদ্ধারে এগিয়ে যায়। এ সময় ওই ২ র‌্যাব সদস্যের ওপরও হামলা চালায় মাদক চোরাকারবারিরা।

খবর পেয়ে ভারতের সমজিয়া ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিককে চোরাকারবারিদের কাছ থেকে উদ্ধার করে আহতাবস্থায় ক্যাম্পে আটকে রাখে। রাত পৌনে ১২টায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আটককৃত দুই র‌্যাব সদস্যকে বিজিবির কাছে ফেরত দেয় বিএসএফ।

র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবদুল্লাহ আল মামুন বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রাতে বিএসএফের কাছ থেকে আহতাবস্থায় উপ-অধিনায়ক এএসপি শ্যামল শর্মা ও কনস্টেবল আবু বক্কর সিদ্দিককে উদ্ধার করা হয়েছে এবং বর্তমানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

এ বিষয়ে র‌্যাব সদর দফতরের আইন ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লা জানান, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৩ দিনাজপুর সিপিসি-১ এর পাঁচ সদস্যের একটি টিম মঙ্গলবার আমতলী সীমান্ত এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটলে র‌্যাবের দুই সদস্য ভারতের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যায় এবং পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাদের ফেরত দেয়।

এ ব্যাপারে বিজিবি-২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরীফউল্লাহ আবেদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভারত সীমান্তবেষ্টিত দিনাজপুর জেলার সীমান্ত দিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বেপরোয়াভাবে বেড়েছে মাদক চোরাচালান। অস্বাভাবিক লাভজনক হওয়ায় এবং জেলার প্রায় সর্বত্রই অবাধেই মাদক বেচাকেনায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সীমান্তের মাদক চোরাকারবারিরা। সীমান্ত দিয়ে অবাধেই ভারত থেকে বাংলাদেশে আসছে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন