বান্দরবানে পুলিশ সদস্যকে পেটাল শ্রমিকরা
jugantor
বান্দরবানে পুলিশ সদস্যকে পেটাল শ্রমিকরা

  বান্দরবান প্রতিনিধি  

২৩ নভেম্বর ২০২০, ২২:৩৬:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ার প্রতিবাদ করায় এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করেছে শ্রমিকরা। এ ঘটনায় পুলিশ ১০ অটোরিকশাচালককে গ্রেফতার করেছে। সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বান্দরবান শহরের ট্রাফিক মোড় থেকে বালাঘাটা যাওয়ার পথে ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশা (টমটম) গাড়িতে পাঁচজন যাত্রী ছিল। পাশাপাশি অনেক মালামালও ছিল গাড়িতে। তারপর চালক আরও একজন অতিরিক্ত যাত্রী নিতে চাইলে প্রতিবাদ করে গাড়িতে অবস্থানরত যাত্রী পুলিশ সদস্য রনি শর্মা।

এতে পুলিশ সদস্যের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে চালকসহ অন্য শ্রমিকরা। একপর্যায়ে অটোরিকশার চালক সোহেল এবং লাইনম্যানসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে মারধর করে।

এ ঘটনায় পুলিশ সদস্য সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অটোরিকশাচালক ১০ জন শ্রমিককে গ্রেফতার করেছে। তবে ঘটনার মূলহোতা চালক সোহেল পলাতক রয়েছে।

অটোরিকশা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আরিফ সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ সদস্য এক যাত্রীর সঙ্গে অটোরিকশা চালকদের বাকবিতণ্ডার খবর পেয়েছি। পরে কয়েকজন শ্রমিক পুলিশ সদস্যকে মারধর করেছে বলেও জেনেছি। বিষয়টি পুলিশ সদস্য থানায় জানালে ১০ জন শ্রমিককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ায় আপত্তি করায় এক পুলিশ সদস্যকে মারধরের ঘটনায় ১০ জন অটোরিকশাচালক শ্রমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও কারা জড়িত আছে বিষয়টি খতিয়ে দেয়া হচ্ছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বান্দরবানে পুলিশ সদস্যকে পেটাল শ্রমিকরা

 বান্দরবান প্রতিনিধি 
২৩ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ার প্রতিবাদ করায় এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করেছে শ্রমিকরা। এ ঘটনায় পুলিশ ১০ অটোরিকশাচালককে গ্রেফতার করেছে। সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বান্দরবান শহরের ট্রাফিক মোড় থেকে বালাঘাটা যাওয়ার পথে ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশা (টমটম) গাড়িতে পাঁচজন যাত্রী ছিল। পাশাপাশি অনেক মালামালও ছিল গাড়িতে। তারপর চালক আরও একজন অতিরিক্ত যাত্রী নিতে চাইলে প্রতিবাদ করে গাড়িতে অবস্থানরত যাত্রী পুলিশ সদস্য রনি শর্মা।

এতে পুলিশ সদস্যের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে চালকসহ অন্য শ্রমিকরা। একপর্যায়ে অটোরিকশার চালক সোহেল এবং লাইনম্যানসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে মারধর করে।

এ ঘটনায় পুলিশ সদস্য সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অটোরিকশাচালক ১০ জন শ্রমিককে গ্রেফতার করেছে। তবে ঘটনার মূলহোতা চালক সোহেল পলাতক রয়েছে।

অটোরিকশা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আরিফ সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ সদস্য এক যাত্রীর সঙ্গে অটোরিকশা চালকদের বাকবিতণ্ডার খবর পেয়েছি। পরে কয়েকজন শ্রমিক পুলিশ সদস্যকে মারধর করেছে বলেও জেনেছি। বিষয়টি পুলিশ সদস্য থানায় জানালে ১০ জন শ্রমিককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ায় আপত্তি করায় এক পুলিশ সদস্যকে মারধরের ঘটনায় ১০ জন অটোরিকশাচালক শ্রমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও কারা জড়িত আছে বিষয়টি খতিয়ে দেয়া হচ্ছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন