স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যায় গ্রেফতার ১
jugantor
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যায় গ্রেফতার ১

  কুমিল্লা ব্যুরো   

২৭ নভেম্বর ২০২০, ২১:৩৯:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

নিহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম

কুমিল্লার বরুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহিরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত জহিরের ভাই জোবায়ের হোসেন বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ মামলার আসামিরা হলেন- উপজেলার জীবনপুর গ্রামের আবাদুল ইসলাম আবাদ, তার ছেলে মাসুদ, মারজাহান মিয়া ও আবাদের ফুফাতো ভাই ফারুক হোসেন। এ ঘটনায় পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামি ফারুক হোসেনকে গ্রেফতার করেছে।

শুক্রবার দুপুরে তাকে কুমিল্লার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শিলমুড়ী উত্তর ইউনিয়নের জীবনপুর গ্রামে দুইপক্ষের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ মেটাতে গিয়ে খুন হন বরুড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির।

তিনি বরুড়া পৌর এলাকার জিনসার গ্রামের মৃত আবদুল মালেকের ছেলে। হত্যাকাণ্ডের পর বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। এ সময় জহিরের মা জোহরা বেগমসহ তার পরিবারকে সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায়বিচারের আশ্বাস দেন তিনি।

শুক্রবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে জহিরের মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। বিকালে স্থানীয় স্কুলমাঠে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বরুড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নাহিদ আহমেদ বলেন, একজনকে গ্রেফতার করেছি। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যায় গ্রেফতার ১

 কুমিল্লা ব্যুরো  
২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৯:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম
নিহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম

কুমিল্লার বরুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহিরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত জহিরের ভাই জোবায়ের হোসেন বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ মামলার আসামিরা হলেন- উপজেলার জীবনপুর গ্রামের আবাদুল ইসলাম আবাদ, তার ছেলে মাসুদ, মারজাহান মিয়া ও আবাদের ফুফাতো ভাই ফারুক হোসেন। এ ঘটনায় পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামি ফারুক হোসেনকে গ্রেফতার করেছে।

শুক্রবার দুপুরে তাকে কুমিল্লার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শিলমুড়ী উত্তর ইউনিয়নের জীবনপুর গ্রামে দুইপক্ষের সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ মেটাতে গিয়ে খুন হন বরুড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির। 

তিনি বরুড়া পৌর এলাকার জিনসার গ্রামের মৃত আবদুল মালেকের ছেলে। হত্যাকাণ্ডের পর বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। এ সময় জহিরের মা জোহরা বেগমসহ তার পরিবারকে সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায়বিচারের আশ্বাস দেন তিনি। 

শুক্রবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে জহিরের মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। বিকালে স্থানীয় স্কুলমাঠে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। 

বরুড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নাহিদ আহমেদ বলেন, একজনকে গ্রেফতার করেছি। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন