সন্তান রেখে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানি 
jugantor
সন্তান রেখে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানি 

  রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি  

২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৮:২৮:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শিশুসন্তান রেখে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার পর মামলা দিয়ে শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে বিথী আক্তার (২০) নামে প্রবাসীর এক স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভার পূর্বলাচ গ্রামের বেপারিবাড়িতে।

শনিবার সকালে ওই গৃহবধূর শ্বশুর আবদুল কাদের (৬০) এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ অভিযোগ করে বিচার দাবি করেন।

আবদুল কাদের জানান, ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে বিথী ও আবদুর রবের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দেড় বছরের শিশুসন্তান রয়েছে।

তিনি অভিযোগ করেন, প্রবাসী স্বামীর অনুপস্থিতিতে ২০ আগস্ট রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরিচয় হওয়া প্রেমিক রাকিবের সঙ্গে শারীরিক মেলামেশার সময় শ্বশুরের কাছে ধরা পড়ে।

পরে ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকার করে রক্ষা পায় বিথী ও তার প্রেমিক। ২০ অক্টোবর আবদুর রবের পাঠানো ৪ লাখ টাকা, ৫ ভরি স্বর্ণ ও দেড় বছরের শিশুসন্তান রেখে প্রেমিক রাকিবের সঙ্গে পালিয়েছে বিথী।

এ ঘটনায় আবদুল কাদের বাদী হয়ে ২০ অক্টোবর রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু গত ১৯ নভেম্বর বিথীর পিতা অটোচালক বাবুল মিয়া বাদী হয়ে বিথী নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগে আবদুল কাদেরসহ ৪ জনকে আসামি করে লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল আদালতে মামলা করেছেন।

বাবুল মিয়া জানান, আমার মেয়েকে খুঁজে পেতে আদালতে মামলা করেছি।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, বিথীর নিখোঁজের বিষয়ে থানায় দায়ের করা তার শ্বশুরের অভিযোগ এবং তার পিতা বাবুলের দায়ের করা আদালতের মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। তবে জানতে পেরেছি, মেয়েটি নিজ ইচ্ছায় বাড়ি থেকে বের হয়ে ঢাকার কোনো একটি গার্মেন্টে কাজ করছেন।

সন্তান রেখে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী, শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানি 

 রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি 
২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৬:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শিশুসন্তান রেখে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার পর মামলা দিয়ে শ্বশুর-শাশুড়িকে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে বিথী আক্তার (২০) নামে প্রবাসীর এক স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভার পূর্বলাচ গ্রামের বেপারিবাড়িতে।

শনিবার সকালে ওই গৃহবধূর শ্বশুর আবদুল কাদের (৬০) এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ অভিযোগ করে বিচার দাবি করেন।

আবদুল কাদের জানান, ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে বিথী ও আবদুর রবের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দেড় বছরের শিশুসন্তান রয়েছে।

তিনি অভিযোগ করেন, প্রবাসী স্বামীর অনুপস্থিতিতে ২০ আগস্ট রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরিচয় হওয়া প্রেমিক রাকিবের সঙ্গে শারীরিক মেলামেশার সময় শ্বশুরের কাছে ধরা পড়ে। 

পরে ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকার করে রক্ষা পায় বিথী ও তার প্রেমিক। ২০ অক্টোবর আবদুর রবের পাঠানো ৪ লাখ টাকা, ৫ ভরি স্বর্ণ ও দেড় বছরের শিশুসন্তান রেখে প্রেমিক রাকিবের সঙ্গে পালিয়েছে বিথী। 

এ ঘটনায় আবদুল কাদের বাদী হয়ে ২০ অক্টোবর রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু গত ১৯ নভেম্বর বিথীর পিতা অটোচালক বাবুল মিয়া বাদী হয়ে বিথী নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগে আবদুল কাদেরসহ ৪ জনকে আসামি করে লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল আদালতে মামলা করেছেন।

বাবুল মিয়া জানান, আমার মেয়েকে খুঁজে পেতে আদালতে মামলা করেছি।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, বিথীর নিখোঁজের বিষয়ে থানায় দায়ের করা তার শ্বশুরের অভিযোগ এবং তার পিতা বাবুলের দায়ের করা আদালতের মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। তবে জানতে পেরেছি, মেয়েটি নিজ ইচ্ছায় বাড়ি থেকে বের হয়ে ঢাকার কোনো একটি গার্মেন্টে কাজ করছেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন