অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে জনতার হাতে পুলিশ সদস্য আটক 
jugantor
অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে জনতার হাতে পুলিশ সদস্য আটক 

  রংপুর ব্যুরো  

২৮ নভেম্বর ২০২০, ২৩:০২:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুর নগরীতে গৃহবধূর সঙ্গে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে লিটন মিয়া নামের এক পুলিশ সদস্যকে স্থানীয় জনগণ আটক করে থানায় সোপর্দ করেছেন।

শনিবার সকালে নগরীর আমাশু কুকরুলের পূর্বপাড়া এলাকা থেকে ওই পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়। তার বাড়ি রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায়। তিনি ঢাকার আশুলিয়া শিল্প থানায় কর্মরত।

স্থানীয়রা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে ওই গৃহবধূর বাড়িতে যাতায়াত ছিল পুলিশ সদস্যের। শুক্রবার রাতে ওই গৃহবধূর স্বামী তার মেয়েকে নিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে যান। এ সুযোগে রাতে পুলিশ সদস্য লিটন ওই বাড়িতে গিয়ে রাতযাপন করেন।

শনিবার সকালে ওই গৃহবধূর ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় পাড়া-প্রতিবেশীরা তাকে দেখে ফেলেন। এ সময় এলাকাবাসী তাকে আটক করেন। একপর্যায়ে এলাকার লোকজন পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

খবর পেয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর হারাধর রায় ও পরশুরাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করতে পুলিশ সদস্যকে থানায় নিয়ে যান।

পরশুরাম থানার ওসি (তদন্ত) আবু মুছা সরকার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই পুলিশ সদস্যকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে জনতার হাতে পুলিশ সদস্য আটক 

 রংপুর ব্যুরো 
২৮ নভেম্বর ২০২০, ১১:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুর নগরীতে গৃহবধূর সঙ্গে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে লিটন মিয়া নামের এক পুলিশ সদস্যকে স্থানীয় জনগণ আটক করে থানায় সোপর্দ করেছেন।

শনিবার সকালে নগরীর আমাশু কুকরুলের পূর্বপাড়া এলাকা থেকে ওই পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়। তার বাড়ি রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায়। তিনি ঢাকার আশুলিয়া শিল্প থানায় কর্মরত। 

স্থানীয়রা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে ওই গৃহবধূর বাড়িতে যাতায়াত ছিল পুলিশ সদস্যের। শুক্রবার রাতে ওই গৃহবধূর স্বামী তার মেয়েকে নিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে যান। এ সুযোগে রাতে পুলিশ সদস্য লিটন ওই বাড়িতে গিয়ে রাতযাপন করেন। 

শনিবার সকালে ওই গৃহবধূর ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় পাড়া-প্রতিবেশীরা তাকে দেখে ফেলেন। এ সময় এলাকাবাসী তাকে আটক করেন। একপর্যায়ে এলাকার লোকজন পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

খবর পেয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর হারাধর রায় ও পরশুরাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করতে পুলিশ সদস্যকে থানায় নিয়ে যান। 

পরশুরাম থানার ওসি (তদন্ত) আবু মুছা সরকার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই পুলিশ সদস্যকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন