সুনামগঞ্জে ছেলের হাতে বাবা খুন
jugantor
সুনামগঞ্জে ছেলের হাতে বাবা খুন

  যুগান্তর রিপোর্ট, তাহিরপুর  

২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৩২:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জে ছেলের হাতে বাবা খুন

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় ছেলের হাতে তার বাবা খুন হয়েছেন। নিহত বাবার নাম ইসলাম উদ্দিন (৫২)।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট বাজারে বাদাঘাট-সুনামগঞ্জ সড়কের কলাপট্টিতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইসলাম উদ্দিন উপজেলার বাদাঘাট উত্তর ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে। তিনি দুই ছেলে ও তিন মেয়ের জনক।

ঘাতক ছেলের নাম নাজমুল হোসেন (২০)। সে উপজেলার বাদাঘাট বাজারের বাদাঘাট-সুনামগঞ্জ সড়কের কলাপট্টিতে স্টেশনারি মালামাল পান সিগারেট বিক্রেতা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ১০টার দিকে পারিবারিক বিষয়ে উপজেলার বাদাঘাট বাজারে কলাপট্টিতে নাজমুল হোসেনের দোকানের সামনে এসে তার বাবা ইসলাম উদ্দিন বকাঝকা করতে থাকেন।

একপর্যায়ে নাজমুল ক্ষিপ্ত হয়ে সুপারি ভাঙার সরতা দিয়ে বাবার মাথায় কয়েকটি আঘাত করে। এর পরই তার বাবা ইসলাম উদ্দিন দোকানের সামনে পাকা সড়কের ওপর সংজ্ঞাহীন হয়ে লুটিয়ে পড়েন। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এর পরই নাজমুল পালিয়ে যায়।

শনিবার মধ্যরাতে তাহিরপুর থানার ওসি মো. আবদুল লতিফ তরফদার যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনা জানার পর অভিযুক্ত ছেলে নাজমুলকে আটক করতে রাতেই পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

তাহিরপুর থানার এসআই সুজন চন্দ্র শ্যাম জানান, আঘাতের কারণে ইসলামের মাথার দুটি ফাটল দিয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

সুনামগঞ্জে ছেলের হাতে বাবা খুন

 যুগান্তর রিপোর্ট, তাহিরপুর 
২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৩২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সুনামগঞ্জে ছেলের হাতে বাবা খুন
ফাইল ছবি

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় ছেলের হাতে তার বাবা খুন হয়েছেন। নিহত বাবার নাম ইসলাম উদ্দিন (৫২)।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট বাজারে বাদাঘাট-সুনামগঞ্জ সড়কের কলাপট্টিতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইসলাম উদ্দিন উপজেলার বাদাঘাট উত্তর ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে। তিনি দুই ছেলে ও তিন মেয়ের জনক।

ঘাতক ছেলের নাম নাজমুল হোসেন (২০)। সে উপজেলার বাদাঘাট বাজারের বাদাঘাট-সুনামগঞ্জ সড়কের কলাপট্টিতে স্টেশনারি মালামাল পান সিগারেট বিক্রেতা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ১০টার দিকে পারিবারিক বিষয়ে উপজেলার বাদাঘাট বাজারে কলাপট্টিতে নাজমুল হোসেনের দোকানের সামনে এসে তার বাবা ইসলাম উদ্দিন বকাঝকা করতে থাকেন।

একপর্যায়ে নাজমুল ক্ষিপ্ত হয়ে সুপারি ভাঙার সরতা দিয়ে বাবার মাথায় কয়েকটি আঘাত করে। এর পরই তার বাবা ইসলাম উদ্দিন দোকানের সামনে পাকা সড়কের ওপর সংজ্ঞাহীন হয়ে লুটিয়ে পড়েন। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এর পরই নাজমুল পালিয়ে যায়।

শনিবার মধ্যরাতে তাহিরপুর থানার ওসি মো. আবদুল লতিফ তরফদার যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনা জানার পর অভিযুক্ত ছেলে নাজমুলকে আটক করতে রাতেই পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

তাহিরপুর থানার এসআই সুজন চন্দ্র শ্যাম জানান, আঘাতের কারণে ইসলামের মাথার দুটি ফাটল দিয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন