কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটিকে দত্তক নিতে চায় ১০ দম্পতি
jugantor
কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটিকে দত্তক নিতে চায় ১০ দম্পতি

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

৩০ নভেম্বর ২০২০, ২১:৪৮:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাস্তার পাশ থেকে কুড়িয়ে পাওয়া ছেলেশিশুটিকে দত্তক নিতে চায় ১০ নি:সন্তান দম্পতি। ইতোমধ্যেই তারা শিশুটিকে দত্তক নিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও সদর মডেল থানায় যোগাযোগ শুরু করেছেন।

কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটি বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শিশুটি সুস্থ রয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের ঢাকা-আগরতলা মহাসড়কের পাশে দুবলা গ্রামের একটি সড়কের পাশে শিশুটিকে পাওয়া যায়। শিশুর কান্না শুনে গ্রামের কৃষক জহিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার কলাগাছের ঝোপে গিয়ে কাপড় দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় শিশুটি দেখতে পান। পরে তারা উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ পুলিশকে অবহিত করেন।

রাতেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। কোনো অভিভাবক না থাকায় নার্সদের সঙ্গে জহিরুল ইসলাম দম্পতি শিশুটিকে দেখাশুনা করছেন। শিশুটির প্রকৃত অভিভাবক না পেলে জহিরুল ইসলাম দম্পতি ওই শিশুটির দায়িত্ব নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

তারা বলেন, দুই ছেলে ও দুই মেয়ে আছে। তারপরও সরকার যদি শিশুটিকে আমাদের দিয়ে দেয় তাহলে সন্তানের মতো তাকেও মানুষ করার চেষ্টা করব। ২০ বছর পরেও যদি শিশুটির প্রকৃত অভিভাবক এসে ছেলেকে দাবি করেন তাহলে আমরা তাকে তার প্রকৃত মায়ের হাতে তুলে দেব।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেন বলেন, শিশুটি বর্তমানে ভালো ও সুস্থ আছে। প্রকৃত অভিভাবক না পাওয়া গেলে সমাজসেবার মাধ্যমে তাকে শিশু পরিবারে হস্তান্তর করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসি মো. আবদুর রহিম বলেন, এখনও শিশুটির কোনো অভিভাবক পাওয়া যায়নি। শিশুর পরিবারের সন্ধানে পুলিশ কাজ করছে। অভিভাবক না পেলে আদালতের মাধ্যমে শিশুটির পরবর্তী অবস্থান কোথায় হবে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতাল ও সদর মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে, শিশুটিকে দত্তক নিতে ইতোমধ্যেই ১০ নি:সন্তান দম্পতি আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটিকে দত্তক নিতে চায় ১০ দম্পতি

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৯:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাস্তার পাশ থেকে কুড়িয়ে পাওয়া ছেলেশিশুটিকে দত্তক নিতে চায় ১০ নি:সন্তান দম্পতি। ইতোমধ্যেই তারা শিশুটিকে দত্তক নিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও সদর মডেল থানায় যোগাযোগ শুরু করেছেন।

কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটি বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শিশুটি সুস্থ রয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের ঢাকা-আগরতলা মহাসড়কের পাশে দুবলা গ্রামের একটি সড়কের পাশে শিশুটিকে পাওয়া যায়। শিশুর কান্না শুনে গ্রামের কৃষক জহিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার কলাগাছের ঝোপে গিয়ে কাপড় দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় শিশুটি দেখতে পান। পরে তারা উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ পুলিশকে অবহিত করেন।

রাতেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। কোনো অভিভাবক না থাকায় নার্সদের সঙ্গে জহিরুল ইসলাম দম্পতি শিশুটিকে দেখাশুনা করছেন। শিশুটির প্রকৃত অভিভাবক না পেলে জহিরুল ইসলাম দম্পতি ওই শিশুটির দায়িত্ব নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

তারা বলেন, দুই ছেলে ও দুই মেয়ে আছে। তারপরও সরকার যদি শিশুটিকে আমাদের দিয়ে দেয় তাহলে সন্তানের মতো তাকেও মানুষ করার চেষ্টা করব। ২০ বছর পরেও যদি শিশুটির প্রকৃত অভিভাবক এসে ছেলেকে দাবি করেন তাহলে আমরা তাকে তার প্রকৃত মায়ের হাতে তুলে দেব।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেন বলেন, শিশুটি বর্তমানে ভালো ও সুস্থ আছে। প্রকৃত অভিভাবক না পাওয়া গেলে সমাজসেবার মাধ্যমে তাকে শিশু পরিবারে হস্তান্তর করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসি মো. আবদুর রহিম বলেন, এখনও শিশুটির কোনো অভিভাবক পাওয়া যায়নি। শিশুর পরিবারের সন্ধানে পুলিশ কাজ করছে। অভিভাবক না পেলে আদালতের মাধ্যমে শিশুটির পরবর্তী অবস্থান কোথায় হবে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতাল ও সদর মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে, শিশুটিকে দত্তক নিতে ইতোমধ্যেই ১০ নি:সন্তান দম্পতি আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন