বাড়িতে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’!
jugantor
বাড়িতে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’!

  যুগান্তর রিপোর্ট, ভোলা  

০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৩:৩৯:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বাড়িতে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’!

ভোলার সদর উপজেলায় একটি বাড়ি থেকে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’ সাপ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সদর উপজেলার ২নং ওয়ার্ডের ধনিয়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের বাড়ি থেকে সাপটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার সন্ধ্যার দিকে মো. ইসমাইল হোসেন নদীতে হাত-মুখ ধুতে যান। এ সময় মেঘনা নদীর তীর সংরক্ষণের জন্য বসানো ব্লকের ফাঁক দিয়ে তিনি সাপটিকে যেতে দেখে লেজ ধরে ওপরে ছুড়ে ফেলেন।

পরে সাপটি দেখে তিনি অচেনা ভয়ঙ্কর সাপ ধারণা করে একটি প্লাস্টিকের বোস্তায় ভরে বাড়ি নিয়ে যান। এর পর ভয়ঙ্কর সাপ ধরা পড়ার খবর মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা ইসমাইল হোসেনের বাড়িতে ভিড় জমান। এর পর বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মকর্তাদের খবর দেয়া হয়।

ভোলা বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে সাপটিকে উদ্ধার করেছি। এটি কিলিংমেশিনখ্যাত ‘রাসেল ভাইপার’। পৃথিবীর ভয়ঙ্কর বিষধর সাপের মধ্যে এটি পঞ্চম। এ সাপের কোনো ভ্যাকসিন এখন পর্যন্ত আবিষ্কার হয়নি।

এই সাপের বিষ দাঁত দ্বারা দংশন হলে বিষক্রিয়া ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ে অত্যধিক রক্তক্ষরণে দীর্ঘ যন্ত্রণার পর মৃত্যু হয়। সাপটিকে বিকালের মধ্যে গভীর বনে অবমুক্ত করা হবে।

বাড়িতে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’!

 যুগান্তর রিপোর্ট, ভোলা 
০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাড়িতে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’!
ছবি: যুগান্তর

ভোলার সদর উপজেলায় একটি বাড়ি থেকে ভয়ঙ্কর বিষধর ‘রাসেল ভাইপার’ সাপ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সদর উপজেলার ২নং ওয়ার্ডের ধনিয়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের বাড়ি থেকে সাপটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার সন্ধ্যার দিকে মো. ইসমাইল হোসেন নদীতে হাত-মুখ ধুতে যান। এ সময় মেঘনা নদীর তীর সংরক্ষণের জন্য বসানো ব্লকের ফাঁক দিয়ে তিনি সাপটিকে যেতে দেখে লেজ ধরে ওপরে ছুড়ে ফেলেন।

পরে সাপটি দেখে তিনি অচেনা ভয়ঙ্কর সাপ ধারণা করে একটি প্লাস্টিকের বোস্তায় ভরে বাড়ি নিয়ে যান। এর পর ভয়ঙ্কর সাপ ধরা পড়ার খবর মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা ইসমাইল হোসেনের বাড়িতে ভিড় জমান। এর পর বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মকর্তাদের খবর দেয়া হয়।

ভোলা বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে সাপটিকে উদ্ধার করেছি। এটি কিলিংমেশিনখ্যাত ‘রাসেল ভাইপার’। পৃথিবীর ভয়ঙ্কর বিষধর সাপের মধ্যে এটি পঞ্চম। এ সাপের কোনো ভ্যাকসিন এখন পর্যন্ত আবিষ্কার হয়নি।

এই সাপের বিষ দাঁত দ্বারা দংশন হলে বিষক্রিয়া ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ে অত্যধিক রক্তক্ষরণে দীর্ঘ যন্ত্রণার পর মৃত্যু হয়। সাপটিকে বিকালের মধ্যে গভীর বনে অবমুক্ত করা হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন