‘মায়ের আত্মার শান্তির জন্য তাকে খুন করেছি’ 
jugantor
‘মায়ের আত্মার শান্তির জন্য তাকে খুন করেছি’ 

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬:০৪:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইয়াসীন আরাফাত

গাজীপুরের শ্রীপুরে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের হাতে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব (পশ্চিমপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রেহেনা খাতুন (৪০) ওই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী।

এ ঘটনায় পুলিশ ছেলে ইয়াসীন আরাফাতকে (১৬) গ্রেফতার করেছে।

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন যুগান্তরকে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কাওরাইদ ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম ঢালী জানান, রেহেনা খাতুন সকালে বাড়ির উঠানে ধান শুকাচ্ছিলেন। এ সময় ছেলে ইয়াসীন মায়ের কাছে একটি ধারালো দা চায়। কারণ জানতে চাইলে সে গাছ থেকে ডাব পেড়ে খাবে বলে জানায়। ছেলেকে দা দিয়ে কাজে যান রেহেনা। এ সময় ইয়াসীন পেছন থেকে মায়ের ঘাড়ে দা দিয়ে কোপ দেয়। সঙ্গে সঙ্গে রেহেনা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে সে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তার মাকে হত্যা করে।

ইউপি সদস্য আরও জানান, ইয়াসীন বলদীঘাট জেএম সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির মেধাবী ছাত্র। গত কয়েকদিন ধরে সে পরিবারের সবার সঙ্গে অসংলগ্ন আচরণ করছে। স্থানীয়রা তাকে আটক করে শ্রীপুর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছে।

অভিযুক্ত ইয়াসীন আরাফাত জানিয়েছেন, মায়ের আত্মার শান্তির জন্য সে তার মাকে খুন করেছে। তবে এখন তার মায়ের জন্য খুব কষ্ট হচ্ছে।

ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, অভিযুক্ত ইয়াসীন আরাফাতকে আটক করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

‘মায়ের আত্মার শান্তির জন্য তাকে খুন করেছি’ 

 শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইয়াসীন আরাফাত
অভিযুক্ত ইয়াসীন আরাফাত। ছবি-যুগান্তর

গাজীপুরের শ্রীপুরে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের হাতে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন। 

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব (পশ্চিমপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত রেহেনা খাতুন (৪০) ওই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী। 

এ ঘটনায় পুলিশ ছেলে ইয়াসীন আরাফাতকে (১৬) গ্রেফতার করেছে। 

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন যুগান্তরকে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।  

কাওরাইদ ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম ঢালী জানান, রেহেনা খাতুন সকালে বাড়ির উঠানে ধান শুকাচ্ছিলেন। এ সময় ছেলে ইয়াসীন মায়ের কাছে একটি ধারালো দা চায়। কারণ জানতে চাইলে সে গাছ থেকে ডাব পেড়ে খাবে বলে জানায়। ছেলেকে দা দিয়ে কাজে যান রেহেনা। এ সময় ইয়াসীন পেছন থেকে মায়ের ঘাড়ে দা দিয়ে কোপ দেয়। সঙ্গে সঙ্গে রেহেনা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে সে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তার মাকে হত্যা করে।

ইউপি সদস্য আরও জানান, ইয়াসীন বলদীঘাট জেএম সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির মেধাবী ছাত্র। গত কয়েকদিন ধরে সে পরিবারের সবার সঙ্গে অসংলগ্ন আচরণ করছে। স্থানীয়রা তাকে আটক করে শ্রীপুর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছে। 

অভিযুক্ত ইয়াসীন আরাফাত জানিয়েছেন, মায়ের আত্মার শান্তির জন্য সে তার মাকে খুন করেছে। তবে এখন তার মায়ের জন্য খুব কষ্ট হচ্ছে।

ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, অভিযুক্ত ইয়াসীন আরাফাতকে আটক করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন