রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার লাশটি আসিফের
jugantor
রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার লাশটি আসিফের

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

০২ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৫৫:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে। নিহত যুবকের নাম আসিফ মিয়া (২০)।

নিহত আসিফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পুনিয়াউটের মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে। সে পৌর এলাকার ভাদুঘরে ভাড়া বাসায় বসবাস করত। পেশায় ছিল ব্যাটারিচালিত অটো রিকশাচালক।

মঙ্গলবার বিকালে ঢাকা-সিলেট-চট্টগ্রাম রেলপথের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার দুবলা এলাকা থেকে গলাকাটা লাশটি উদ্ধার করে আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশ। বুধবার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশটি হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে আসা নিহতের খালাতো ভাই আলাল মিয়া জানান, চার বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে আসিফ ছোট। সে ভাড়ায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালাত। সোমবার বিকাল ৪টায় বাড়ি থেকে অটোরিকশা নিয়ে বের হয়ে যায়। রাতে বাড়িতে আর ফেরেনি। মঙ্গলবার সকালে আসিফের মোবাইলে কল দিলে রিসিভ করেনি। পরে মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়।

তিনি জানান, দুপুরে আবার মোবাইলে কল দিলে একজন লোক রিসিভ করে জানান- দুবলা রেললাইনে পাশে রক্তমাখা মোবাইলটি পেয়েছেন। সেই সূত্র ধরে আমরা খোঁজ করে বিকালে আখাউড়া রেলওয়ে থানায় গিয়ে আসিফের লাশটি পেয়েছি। তবে তার অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন রেলওয়ে থানার ওসি সাকিউল আযম জানান, এ ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে আখাউড়া রেলওয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসিফের অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি। আমরা ধারণা করছি, অটোরিকশাটি নিতেই আসিফকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ ঘটনার রহস্য উদঘাটনে তদন্ত শুরু করেছে।

রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার লাশটি আসিফের

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রেললাইনের পাশ থেকে উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে। নিহত যুবকের নাম আসিফ মিয়া (২০)।

নিহত আসিফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পুনিয়াউটের মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে। সে পৌর এলাকার ভাদুঘরে ভাড়া বাসায় বসবাস করত। পেশায় ছিল ব্যাটারিচালিত অটো রিকশাচালক।

মঙ্গলবার বিকালে ঢাকা-সিলেট-চট্টগ্রাম রেলপথের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার দুবলা এলাকা থেকে গলাকাটা লাশটি উদ্ধার করে আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশ। বুধবার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশটি হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে আসা নিহতের খালাতো ভাই আলাল মিয়া জানান, চার বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে আসিফ ছোট। সে ভাড়ায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালাত। সোমবার বিকাল ৪টায় বাড়ি থেকে অটোরিকশা নিয়ে বের হয়ে যায়। রাতে বাড়িতে আর ফেরেনি। মঙ্গলবার সকালে আসিফের মোবাইলে কল দিলে রিসিভ করেনি। পরে মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়।

তিনি জানান, দুপুরে আবার মোবাইলে কল দিলে একজন লোক রিসিভ করে জানান- দুবলা রেললাইনে পাশে রক্তমাখা মোবাইলটি পেয়েছেন। সেই সূত্র ধরে আমরা খোঁজ করে বিকালে আখাউড়া রেলওয়ে থানায় গিয়ে আসিফের লাশটি পেয়েছি। তবে তার অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন রেলওয়ে থানার ওসি সাকিউল আযম জানান, এ ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে আখাউড়া রেলওয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসিফের অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি। আমরা ধারণা করছি, অটোরিকশাটি নিতেই আসিফকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ ঘটনার রহস্য উদঘাটনে তদন্ত শুরু করেছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন