দরিদ্র কৃষককে ক্ষতিপূরণ দিতে আদালতের নির্দেশ   
jugantor
দরিদ্র কৃষককে ক্ষতিপূরণ দিতে আদালতের নির্দেশ   

  রাজশাহী ব্যুরো  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ২১:৪৭:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জরিপের সময় খতিয়ানে ভুল দাগ নম্বর উঠায় রাজশাহীর পবা উপজেলার একজন হতদরিদ্র কৃষক ২০১২ সালে পবার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে সরকারের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

বাদী তার আর্জিতে বলেন, আরএস বা হালনাগাদ জরিপে জমির খতিয়াতে ৪২৫ দাগের পরিবর্তে ৪১৫ নম্বর দাগ তুলে দেন সরকারের জরিপ বিভাগ। দাগ নম্বর ভুল হওয়ায় জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ তৈরি হয়।

ফলে কৃষক জরিপ অধিদফতরসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিরুদ্ধে ২০১২ সালে একটি দেওয়ানি মামলা রুজু করেন। মামলাটি দীর্ঘদিন ধরে বিচারাধীন ছিল। সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতিনিধি তাদের ভুল স্বীকার করে নেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাজশাহীর পবা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিচারক রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিচারক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান লেখেন- জরিপের ভুল সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের।

এ ভুলের জন্য একজন হতদরিদ্র কৃষককে দীর্ঘদিন ধরে আদালতে ঘুরতে হয়েছে। তিনি আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছেন। ফলে সরকারকে মামলার সমস্ত খরচ প্রদানসহ ভুল সংশোধনের আদেশ দেন বিচারক।

বিচারক তার রায়ে আরও বলেন, আগামী ১৫ ডিসেম্বর বা তার আগে যে কোনো দিন বাদীর মামলা পরিচালনা সংক্রান্ত সমস্ত খরচ পরিশোধ করে তা আদালতকে জানাতে হবে।

এ আলোচিত রায় নিয়ে আদালত প্রাঙ্গণে বিচারপ্রার্থী মানুষসহ সংশ্লিষ্টদের আলোচনা ও সন্তষ্টি প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

রায় সম্পর্কে রাজশাহীর পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন বলেন, এটি একটি যুগান্তকারী রায়। এ রায়ে ন্যায় ও সত্য শতভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

দরিদ্র কৃষককে ক্ষতিপূরণ দিতে আদালতের নির্দেশ   

 রাজশাহী ব্যুরো 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জরিপের সময় খতিয়ানে ভুল দাগ নম্বর উঠায় রাজশাহীর পবা উপজেলার একজন হতদরিদ্র কৃষক ২০১২ সালে পবার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে সরকারের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। 

বাদী তার আর্জিতে বলেন, আরএস বা হালনাগাদ জরিপে জমির খতিয়াতে ৪২৫ দাগের পরিবর্তে ৪১৫ নম্বর দাগ তুলে দেন সরকারের জরিপ বিভাগ। দাগ নম্বর ভুল হওয়ায় জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ তৈরি হয়।

ফলে কৃষক জরিপ অধিদফতরসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিরুদ্ধে ২০১২ সালে একটি দেওয়ানি মামলা রুজু করেন। মামলাটি দীর্ঘদিন ধরে বিচারাধীন ছিল। সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতিনিধি তাদের ভুল স্বীকার করে নেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাজশাহীর পবা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিচারক রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিচারক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান লেখেন- জরিপের ভুল সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের। 

এ ভুলের জন্য একজন হতদরিদ্র কৃষককে দীর্ঘদিন ধরে আদালতে ঘুরতে হয়েছে। তিনি আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছেন। ফলে সরকারকে মামলার সমস্ত খরচ প্রদানসহ ভুল সংশোধনের আদেশ দেন বিচারক। 

বিচারক তার রায়ে আরও বলেন, আগামী ১৫ ডিসেম্বর বা তার আগে যে কোনো দিন বাদীর মামলা পরিচালনা সংক্রান্ত সমস্ত খরচ পরিশোধ করে তা আদালতকে জানাতে হবে। 

এ আলোচিত রায় নিয়ে আদালত প্রাঙ্গণে বিচারপ্রার্থী মানুষসহ সংশ্লিষ্টদের আলোচনা ও সন্তষ্টি প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

রায় সম্পর্কে রাজশাহীর পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন বলেন, এটি একটি যুগান্তকারী রায়। এ রায়ে ন্যায় ও সত্য শতভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন