সেফহোমের গ্রিল ভেঙে পালাল ৪ তরুণী
jugantor
সেফহোমের গ্রিল ভেঙে পালাল ৪ তরুণী

  ফরিদপুর ব্যুরো  

০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৪৮:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুর শহরের টেপাখোলা এলাকায় নারীদের জন্য গড়া নিরাপদ আবাসন (সেফহোম) থেকে চার তরুণী পালিয়ে গেছে। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে সেফহোমের গ্রিল ভেঙে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত মহিলা ও শিশু-কিশোরী হেফাজতিদের নিরাপদ আবাসন থেকে পালানো চার তরুণীর মধ্যে রাজবাড়ীর ২০ ও ২১ বছর বয়সী দুজন, গোপালগঞ্জের ১৮ বছরের একজন এবং শরীয়তপুর জেলার ১৭ বছর বয়সী একজন রয়েছেন।

ওই আবাসনের উপ-তত্ত্বাবধায়ক রুমানা আক্তার বলেন, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সেখানে মোট ৭২ জন নিবাসী ছিলেন। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই আনসার সদস্য ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে চারজন গ্রিল ভেঙে দেয়াল টপকে পালিয়ে যায়।

এরা ভবঘুরে হিসেবে তাদের নিজ জেলায় পুলিশের হাতে আটক হয়ে আদালতের মাধ্যমে এ আবাসনে এসেছিলেন বলে জানান তিনি।

রুমানা আক্তার বলেন, এ ব্যাপারে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া ওই নিবাসীদের সন্ধানে পুলিশের পাশাপাশি সেফহোম কর্তৃপক্ষও কাজ করছে।

ফরিদপুর সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক আলী আহসান বলেন, পালিয়ে যাওয়া নিবাসীদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি মোরশেদ আলম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ওই সময় যে দুই আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া তরুণীদের উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

সেফহোমের গ্রিল ভেঙে পালাল ৪ তরুণী

 ফরিদপুর ব্যুরো 
০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুর শহরের টেপাখোলা এলাকায় নারীদের জন্য গড়া নিরাপদ আবাসন (সেফহোম) থেকে চার তরুণী পালিয়ে গেছে। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে সেফহোমের গ্রিল ভেঙে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত মহিলা ও শিশু-কিশোরী হেফাজতিদের নিরাপদ আবাসন থেকে পালানো চার তরুণীর মধ্যে রাজবাড়ীর ২০ ও ২১ বছর বয়সী দুজন, গোপালগঞ্জের ১৮ বছরের একজন এবং শরীয়তপুর জেলার ১৭ বছর বয়সী একজন রয়েছেন।

ওই আবাসনের উপ-তত্ত্বাবধায়ক রুমানা আক্তার বলেন, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সেখানে মোট ৭২ জন নিবাসী ছিলেন। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই আনসার সদস্য ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে চারজন গ্রিল ভেঙে দেয়াল টপকে পালিয়ে যায়।

এরা ভবঘুরে হিসেবে তাদের নিজ জেলায় পুলিশের হাতে আটক হয়ে আদালতের মাধ্যমে এ আবাসনে এসেছিলেন বলে জানান তিনি।

রুমানা আক্তার বলেন, এ ব্যাপারে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া ওই নিবাসীদের সন্ধানে পুলিশের পাশাপাশি সেফহোম কর্তৃপক্ষও কাজ করছে।

ফরিদপুর সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক আলী আহসান বলেন, পালিয়ে যাওয়া নিবাসীদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি মোরশেদ আলম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ওই সময় যে দুই আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া তরুণীদের উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন