বরকলে আ’লীগের দু’গ্রুপে মারামারি, আহত ১০
jugantor
বরকলে আ’লীগের দু’গ্রুপে মারামারি, আহত ১০

  রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি  

০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০:৫১:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

রাঙ্গামাটি

রাঙ্গামাটির বরকলে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মারামারিতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। শনিবার দুপুরের দিকে উপজেলার এরাবুনিয়ায় দলীয় সাংগঠনিক কর্মসূচি চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক জমির উদ্দিনসহ দলের একটি টিম বরকল উপজেলায় সাংগঠনিক সফরে যায়। ওই সময় সাংগঠনিক কর্মসূচি চলাকালে একপর্যায়ে বরকল উপজেলা আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়। এতে এরাবুনিয়া দলীয় কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের উপস্থিতিতে ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. মামুনুর রশিদ মামুনের নেতৃত্বে তার সহযোগীরা অন্য গ্রুপের নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হলে উভয় পক্ষ হাতাহাতির একপর্যায়ে মারামারিতে জড়ায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর ৫ জনকে রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তারা হলেন- মো. শাহজাহান (৩৫), মো. এমাদুল (৩৭), নাছির হাওলাদার (৪৩), আবদুস সালাম (২৭) ও আনোয়ারা বেগম (৬০)। বাকিদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানান, উভয়ের মধ্যে সামান্য হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। আমরা উভয়কে নিয়ে বসে সমাধান দেয়ার চেষ্টা করছি।

ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশিদ মামুন বলেন, দলীয় জেলা নেতাদের সফরসূচিতে আমাকে ডাকা হলে সেখানে যেতে আমাকে বাধা দেয় সালাম। এতে আমার লোকজন উত্তেজিত হলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

বরকলে আ’লীগের দু’গ্রুপে মারামারি, আহত ১০

 রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি 
০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাঙ্গামাটি
রাঙ্গামাটি

রাঙ্গামাটির বরকলে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মারামারিতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। শনিবার দুপুরের দিকে উপজেলার এরাবুনিয়ায় দলীয় সাংগঠনিক কর্মসূচি চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক জমির উদ্দিনসহ দলের একটি টিম বরকল উপজেলায় সাংগঠনিক সফরে যায়। ওই সময় সাংগঠনিক কর্মসূচি চলাকালে একপর্যায়ে বরকল উপজেলা আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়। এতে এরাবুনিয়া দলীয় কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের উপস্থিতিতে ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. মামুনুর রশিদ মামুনের নেতৃত্বে তার সহযোগীরা অন্য গ্রুপের নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হলে উভয় পক্ষ হাতাহাতির একপর্যায়ে মারামারিতে জড়ায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর ৫ জনকে রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তারা হলেন- মো. শাহজাহান (৩৫), মো. এমাদুল (৩৭), নাছির হাওলাদার (৪৩), আবদুস সালাম (২৭) ও আনোয়ারা বেগম (৬০)। বাকিদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানান, উভয়ের মধ্যে সামান্য হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। আমরা উভয়কে নিয়ে বসে সমাধান দেয়ার চেষ্টা করছি।

ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশিদ মামুন বলেন, দলীয় জেলা নেতাদের সফরসূচিতে আমাকে ডাকা হলে সেখানে যেতে আমাকে বাধা দেয় সালাম। এতে আমার লোকজন উত্তেজিত হলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন