আতংক ছড়াতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ২৬ কর্মী-সমর্থক আটকের অভিযোগ
jugantor
বাঘারপাড়া উপজেলা উপনির্বাচন
আতংক ছড়াতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ২৬ কর্মী-সমর্থক আটকের অভিযোগ

  যশোর ব্যুরো  

০৮ ডিসেম্বর ২০২০, ২১:০০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আনারস মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারির ২৬ কর্মী সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশের দাবি, আটককৃতদের মধ্যে ৮ জন মারামারি মামলায় ও ১৮ জন বিভিন্ন মামলার এজাহারভুক্ত ও সন্দিগ্ধ আসামি। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে তাদের আটক করা হয়েছে।

তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলু পাটোয়ারির অভিযোগ,আতংক সৃষ্টি করতেই তার কর্মী সমর্থকদের আটক করা হয়েছে। প্রশাসন নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে।

জানা যায়, সোমবার রাতে বাঘারপাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ অন্তত ২৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস মার্কার কর্মী সমর্থক হিসেবে মাঠে রয়েছে।

আটককৃতদের মধ্যে কয়েকজন হলেন, দরাজহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন, একই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রিপন হোসেন, উপজেলা যুবলীগ নেতা ও নারিকেলবাড়িয়া ইউপি সদস্য তরিকুল ইসলাম, একই ইউনিয়নের মুজিবুর মোল্যার ছেলে আবদুল হাই, বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফসিয়ার রহমান, একই ওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি লুৎফর মেম্বর, যুবলীগ নেতা ইকবাল হোসেন, রায়পুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদ হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রাসকেল আহমেদ।

আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দিলু পাটোয়ারী অভিযোগ করে বলেন, সোমবার রাতে যাদেরকে আটক করা হয়েছে তারা সবাই আমার কর্মী। আনারস প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত জেনে আমার কর্মীদের নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্যই এই আটক। পুলিশ নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে গ্রেফতার আতংক শুরু করেছে। যত বাধা আসুক না কেন ভোটাররা আনারস প্রতীককে বিজয়ী করতে ভোট কেন্দ্রে যাবেন।

বাঘারপাড়া থানার ওসি সৈয়দ আল মাপুন বলেন, ১০ ডিসেম্বরের উপনির্বাচনে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারে এমন আশংকায় এজাহারভুক্ত ও সন্দিগ্ধ ২৬ জন আসামিকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর অভিযোগ সঠিক নয়।

প্রসঙ্গত, গত ৭ সেপ্টেম্বর বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ন্যায্যমূল্য ইসলাম কাজল হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে এই পদটি শূন্য হয়। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন নিহত উপজেলা চেয়ারম্যান কাজলের স্ত্রী ভিক্টোরিয়া পারভিন সাথী। ইউপি চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী তাকে চ্যালেঞ্জ করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন।

নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শামছুর রহমান। আগামী ১০ ডিসেম্বর উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

বাঘারপাড়া উপজেলা উপনির্বাচন

আতংক ছড়াতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ২৬ কর্মী-সমর্থক আটকের অভিযোগ

 যশোর ব্যুরো 
০৮ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আনারস মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারির ২৬ কর্মী সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশের দাবি, আটককৃতদের মধ্যে ৮ জন মারামারি মামলায় ও ১৮ জন বিভিন্ন মামলার এজাহারভুক্ত ও সন্দিগ্ধ আসামি। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে তাদের আটক করা হয়েছে।

তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলু পাটোয়ারির অভিযোগ,আতংক সৃষ্টি করতেই তার কর্মী সমর্থকদের আটক করা হয়েছে। প্রশাসন নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে।

জানা যায়, সোমবার রাতে বাঘারপাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ অন্তত ২৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস মার্কার কর্মী সমর্থক হিসেবে মাঠে রয়েছে।

আটককৃতদের মধ্যে কয়েকজন হলেন, দরাজহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন, একই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রিপন হোসেন, উপজেলা যুবলীগ নেতা ও নারিকেলবাড়িয়া ইউপি সদস্য তরিকুল ইসলাম, একই ইউনিয়নের মুজিবুর মোল্যার ছেলে আবদুল হাই, বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফসিয়ার রহমান, একই ওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি লুৎফর মেম্বর, যুবলীগ নেতা ইকবাল হোসেন, রায়পুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদ হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রাসকেল আহমেদ।

আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দিলু পাটোয়ারী অভিযোগ করে বলেন, সোমবার রাতে যাদেরকে আটক করা হয়েছে তারা সবাই আমার কর্মী। আনারস প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত জেনে আমার কর্মীদের নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্যই এই আটক। পুলিশ নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে গ্রেফতার আতংক শুরু করেছে। যত বাধা আসুক না কেন ভোটাররা আনারস প্রতীককে বিজয়ী করতে ভোট কেন্দ্রে যাবেন।

বাঘারপাড়া থানার ওসি সৈয়দ আল মাপুন বলেন, ১০ ডিসেম্বরের উপনির্বাচনে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারে এমন আশংকায় এজাহারভুক্ত ও সন্দিগ্ধ ২৬ জন আসামিকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর অভিযোগ সঠিক নয়।

প্রসঙ্গত, গত ৭ সেপ্টেম্বর বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ন্যায্যমূল্য ইসলাম কাজল হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে এই পদটি শূন্য হয়। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন নিহত উপজেলা চেয়ারম্যান কাজলের স্ত্রী ভিক্টোরিয়া পারভিন সাথী। ইউপি চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী তাকে চ্যালেঞ্জ করে স্বতন্ত্র  প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন।

নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শামছুর রহমান। আগামী ১০ ডিসেম্বর উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন